রাজ্যপালকে দালাল বলতেন, হারের আতঙ্কে এখন তাঁর কাছেই ভিক্ষে চাইছেন মমতা ব্যানার্জি কটাক্ষ অধীর চৌধুরীর

খড়গপুর ২৪×৭: বৃহস্পতিবার নন্দীগ্রামের বয়াল থেকে ভোটে অব্যবস্থার অভিযোগ তুলে সরাসরি রাজ্যপালকে ফোন করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বুথে তৃণমূল সমর্থকদের ভোট দিতে দেওয়া হচ্ছে না খবর পেয়ে বয়ালের ৭ নম্বর বুথে হাজির হন তৃণমূল নেত্রী। ফোন পেয়েই আইননানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার আশ্বাস দেন রাজ্যপাল।এনিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধলেন অধীর চৌধুরী।

শুক্রবার ক্যানিংয়ে দলের এক সভায় অধীর বলেন, রাজ্যপালকে বিজেপির দালাল বলে এতদিন কটাক্ষ করতেন মমতা। আর এখন ভোটে হেরে যাচ্ছেন দেখে তাঁর দ্বারস্থ হতে হচ্ছে মমতাকে।

সংযুক্ত মোর্চার প্রার্থী প্রতাপ চন্দ্র মণ্ডলের সমর্থনে এদিন প্রচারে আসেন অধীর। প্রদেশ কংগ্রেস প্রধান বলেন,মমতা ব্যানার্জি নন্দীগ্রামে গিয়ে গণতন্ত্র হত্যার কথা বলছেন। আর রাজ্যজুড়ে তাঁর দলের নেতারাই গণতন্ত্র হত্যা করে বেড়াচ্ছে।  পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্যের মানুষ তা দেখেছে। এখন গণতন্ত্র বাঁচানোর জন্য রাজ্যপালের কাছে কাঁদছেন দিদি। রাজ্যপালের কাছে কেন? রাজ্যপাল কি ভোট দেন? কমিশনের কাছে না গিয়ে রাজ্যপালের কাছে ভিক্ষা চাইছেন। এর থেকে বোঝা যায় তাঁর কী হাল হয়েছে।

এদিন অধীর চৌধুরী আরও বলেন, কংগ্রেস তাঁকে বাঁচাতে পারবে তাই সোনিয়াকে চিঠি লিখেছেন মমতা। এর থেকে বুঝতে হবে মমতার নৌতিক পরাজয় হয়েছে। কারণ দানব বিজেপির চেহারা দেখে ভয় পেয়েছেন তৃণমূল নেত্রী।