আগামী মাস থেকে বাড়তে পারে রান্নায় ব্যবহৃত তেলের দাম

খড়গপুর ২৪×৭: বাড়তে চলেছে রান্নায় ব্যবহৃত তেলের দাম, মূলত এমনটাই আশঙ্কা করা হচ্ছে। কারণ, পরিবহণে খরচ বেড়েছে লরি পিছু ৭ হাজার টাকা। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে বাজারদরে নাভিশ্বাস উঠেছে মানুষের। বাজার দর দিন দিন যে পর্যায়ে পৌঁছেছে তাতে পকেট খালি হচ্ছে মানুষের। জ্বালানির দাম গত বছর থেকে যে হারে বেড়েছে তার জন্যই বাজার দরের দাম বৃদ্ধি। পাশাপাশি বেড়েছে রান্নার গ্যাসের দাম। দফায় দফায় বাড়তে থাকা রান্নার গ্যাসের দামে নিঃশব্দে কখন যে ভর্তুকির সংখ্যাটা শূন্যের দিকে চলে গিয়েছে, তা অনেকেই টের পায়নি। এহেন পরিস্থিতিতে বাড়াতে পারে রান্নার তেলের দাম ।

জানা গিয়েছে, পোস্তা থেকে গোটা রাজ্যে প্রতিদিন ভোজ্য তেলের যোগান যায় ২৫০ মেট্রিক টন । এর মধ্যে সরষের তেল ১৫০ টন । সাদা বা রিফাইন অয়েল ১০০ টন । পশ্চিমবঙ্গ তেল উৎপাদন করেনা। প্রায় গোটাটাই আসে রাজস্থান থেকে। রাজস্থান থেকে যে রাজ্যের ভৌগলিক দূরত্ব যত, সেই অনুযায়ী সেই রাজ্যে তেলের দাম তত। রাজস্থান থেকে ১ লরি অর্থাৎ ২৩ টন ভোজ্য তেল পোস্তা আনার খরচ ৮০ হাজার টাকা। যা আগামী মাস থেকে বেড়ে ৮৭ হাজার হবে। কলকাতার পাইকারি বাজারে আজ সরষের তেলের দাম লিটার প্রতি ১৬০ টাকা ।

খোলা বাজারে লিটার প্রতি ১৮০ টাকা। সাদা তেলের দাম লিটার প্রতি ১৫৩ টাকা । খোলা বাজারে ১৭০ টাকা । ২০২০ সালে লকডাউন শুরুর আগে কলকাতার খুচরো বাজারে সরষের তেলের দাম ছিল ১১৫ থেকে ১২০ টাকা । তার মানে গত ১ বছরে লিটার পিছু তেলের দাম বেড়েছে ৬০ টাকা ।  এবার কতটাকা বাড়তে পারে সেদিকেই তাকিয়ে মধ্যবিত্ত। কারণ, ভারতে দাম কমার কোনও সম্ভাবনা থাকে না।