Thursday, December 2, 2021
Homeরাজ্যশিলিগুড়িতে ভুয়ো সাংবাদিক সেজে! লক্ষাধিক টাকা তোলা আদায়ের চেষ্টা,গ্রেফতার দুই যুবক
Advertisement

শিলিগুড়িতে ভুয়ো সাংবাদিক সেজে! লক্ষাধিক টাকা তোলা আদায়ের চেষ্টা,গ্রেফতার দুই যুবক

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭,শিলিগুড়ি: গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভের কর্মী সেজে ব্ল্যাকমেইল করে প্রায় ৪৫ লক্ষ টাকার দাবির অভিযোগ উঠল শহর শিলিগুড়ির বেশ কয়েকটি ফেসবুক পেজ ও ওয়েব পোর্টালের কর্মীদের বিরুদ্ধে। যে অভিযোগের ভিত্তিতে ইতিমধ্যেই শিলিগুড়ি মেট্রোপলিটন পুলিশের অন্তর্গত ভক্তনগর থানা পুলিশের জালে গ্রেফতার দুই ভুয়ো সাংবাদিক। শিলিগুড়ি চেকপোস্ট এলাকার ব্যাবসায়ী সায়েদ শ্যাম হুসেন নামক এক ব্যক্তির অভিযোগ , বৃহস্পতিবার রাতে একদল যুবক তার অফিসে আসেন। তাদের দাবি তিনি অবৈধভাবে কল সেন্টার চালাচ্ছেন বা কল সেন্টারের আড়ালে অবৈধ কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছেন। ব্যাবসায়ীর দাবি তিনি এই ধরনের কোন ব্যাবসার সাথে যুক্ত নন। তার গাড়ির সরঞ্জামের কল সেন্টার। হুসেন বাবুর অভিযোগ অনুযায়ী সেই অজ্ঞাত পরিচয়ের ব্যাক্তিরা কোন প্রকারেই তার কথার কোন আমল না দিয়ে উল্টে তাদের উপর চড়াও হন এবং তার অফিসে কর্মরত কর্মীদেরও মারধোর করেন। তাদের দাবি তারা সংবাদ মাধ্যম থেকে এসেছেন। নিজেদেরকে সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে জানান এই বেড়াজাল থেকে বাঁচতে হলে তাকে দিতে হবে ৪৫ লক্ষ টাকা। ব্যাবসায়ীর বক্তব্য সেই মুহুর্তে ব্যাপক বাকবিতন্ডায় জড়িয়ে পড়েন দুই পক্ষ। অবশেষে তারা ৩ লক্ষ টাকায় রাজি হন । এক কথায় যাকে বলা যেতে পারে ৩ লক্ষ টাকায় ডিল লক হয়। তবে টাকা জোগাড় করতে বেশ কিছুটা সময় লাগে ওই ব্যবসায়ীর। কিছু অঙ্কের টাকার বন্দোবস্ত করে তারা সেই ভুয়ো সাংবাদিকদের ডেকে টাকা নিয়ে যেতে বললে তারা সেই ব্যাবসায়ীকে সেবক মোড়ের বিশাল সিনেমা হলের সামনে এসে টাকা দিয়ে যেতে বলে। লিখিত অভিযোগ অনুযায়ী বিশাল সিনেমা হলের সামনে টাকা নিয়ে উপস্থিত হলে সেখানে তারা ভক্তিনগর থানার একটি পুলিশ ভ্যান দেখতে পান এবং পুলিশকে গিয়ে সমস্ত ঘটনা জানাতেই পুলিশ তৎক্ষনাৎ পদক্ষেপ নেয়। ঘটনাস্থল থেকেই সায়ন্তন সাহা ,  রবিন সাহা নামে দুজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তাদের জিজ্ঞাসাবাদে উঠে আসে আরও অনেক তথ্য। এই গোটা ঘটনার সাথে শুধু তারা যুক্ত নন , চার জন মহিলা সমেত প্রিতম ,  বাপ্পা রায় সহ আরও অনেকের খোঁজে ভক্তিনগর থানার পুলিশ। গ্রেফতার হওয়া সায়ন্তন সাহা এবং রবিন সাহার তল্লাশি এবং জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে উদ্ধার হয় PRESS CARD , ফেসবুক পেজ এবং WEB PORTAL এর সাথে এরা জড়িত বলে দাবি। গ্রেফতার হওয়া ভুয়ো সাংবাদিকদের কথায় এই পরিকল্পনার সাথে অনেক বড় মাথা জড়িত। কাদের দিকে ইঙ্গিত করতে চাইল তারা ? এই ঘটনা কি পরিকল্পিত ? রাজনৈতিক না কি অরাজনৈতিক কোন বড় কোন ব্যক্তির ইঙ্গিত করতে চাইল তারা,  সে প্রশ্নের উত্তর অবশ্য এখনো পাওয়া যায়নি।

Advertisement
- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!