বাইরে থেকে লোক এনে ভোট প্রচার, রাজ্যে করোনা ছড়িয়েছে বিজেপি! নিশানা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের

খড়গপুর ২৪×৭: ভোটবঙ্গে মানুষের নজর সেভাবে না পড়লেও রাজ্যে লাফিয়ে বাড়ছে করোনা সংক্রমণ। তার মধ্যেই রাজ্যে চলছে জমিয়ে ভোটপ্রচার। এনিয়ে বিজেপিকে নিশানা করলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়

রাজ্যে নতুন করে করোনা ছড়ানোর জন্য জলপাইগুড়ির সভা থেকে বিজেপিকে আক্রমণ করেন মমতা। তিনি বলেন, রাজ্যে আবার কোভিড ছড়িয়ে দিয়েছে ওরা। সব ভালো করে দিয়েছিলাম আমরা। সময়মতো যদি টিকা দিয়ে দিত তাহলে আর কোভিড হতো না। ভোটের প্রচারের নামে এবার বাইরে থেকে বিস্তর লোক এনেছে। আর আমাদের এখানে রোগ ছড়িয়ে দিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। এখন বলে ভোট দাও? আগের বার কোভিড যখন হয়েছিল তখন এরা কেউ আসেনি। এখন এসেছে ভোট প্রচারের জন্য।

জলপাইগুড়ি‌র বেরুবাড়ি সংলগ্ন সিপাহিপাড়া এলাকায় বুধবার সভা করে‌ন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। জলপাইগুড়ি সদর বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী ডাঃ প্রদীপকুমার বর্মার সমর্থনে এই সভা করেন তিনি। যদিও তৃণমূল প্রার্থী ডাঃ প্রদীপকুমার বর্মা করোনা আক্রান্ত থাকা‌য় এই সভায় উপস্থিত থাকতে পারেননি। সভায় উপস্থিত ছিলেন জেলা তৃনমূল সভাপতি কৃষ্ণ কুমার কল্যাণী, বিজয় চন্দ্র বর্মন, সৈকত চ্যাটার্জী, তপন ব্যানার্জী সহ অন্যান্যরা।

বিজেপির বিরুদ্ধে তোপ দেগে মমতা আরও বলেন, বিজেপি কী রকম ছদ্মবেশী ধর্ম করে জানেন? রাজবংশী এলাকায় গিয়ে বলবে, আমরা উদ্বাস্তুদের পছন্দ করি না। উদ্বাস্তু এলাকায় উল্টো কথা বলবে। জেনে রাখুন সব উদ্বাস্তুদের  আইনি স্বীকৃতি দিয়ে দিয়েছি আমরা। ওরা হিন্দু-মুসলমানে গন্ডগোল লাগায় তা শুধু নয়, ওরা রাজবংশীদের সঙ্গে কামতাপুরীদের লড়াই লাগিয়ে দেয়, হিন্দুদের সঙ্গে খ্রিষ্টানদের লাগায়।

জলপাইগুড়ির সঙ্গে আলিপুরদুয়ারের লড়াই লাগিয়ে দেয়। আমরা এরকম দল দেখিনি। আমরা বলি হরেকৃষ্ণ হরি হরি আসুন সবার ভালো করি। আর ওরা বলে, হরে কৃষ্ণ হরি হরি দাঙ্গা লাগিয়ে লোক মারি। হরে কৃষ্ণ হরি হরি গুলি করে লোক মারি। কোভিডে লোক মারা যাচ্ছে। আর বিজেপির পার্টি অফিস থেকে ইঞ্জেকশন দিচ্ছে। পার্টির ইঞ্জেকশন। লোককে বাঁচাতে গিয়ে মেরে দিচ্ছে। এসব আমরা করি না। ইঞ্জেকশন দিতে গেলেও জানতে হবে ওটা আসল কিনা। ওটা ডাক্তারদের কাজ।