শীতলকুচি নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের জের, দিলীপ ঘোষের প্রচারে ২৪ ঘণ্টা নিষেধাজ্ঞা করলো নির্বাচন কমিশন

খড়গপুর ২৪×৭: মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, রাহুল সিনহার পর এবার  দিলীপ ঘোষ। আগামী ২৪ ঘণ্টার জন্য রাজ্যে বিজেপি সভাপতির প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করল নির্বাচন কমিশন। বৃহস্পতিবার রাত ৮টা থেকে শুক্রবার রাত আটটা পর্যন্ত বলবত থাকবে ওই নিষেধাজ্ঞা।

কেন ওই নিষেধাজ্ঞা? কমিশন সূত্রে খবর, শীতলকুচিকাণ্ডে বিতর্কিত মন্তব্য করে নির্বাচনী আচরণবিধি লঙ্ঘন করেছেন দিলীপ ঘোষ। প্রসঙ্গত, মমতা বন্দ্য়োপাধ্য়ায়ের প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারির পর বিজেপির একাধিক নেতার প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারির ব্যাপারে দরবার করেছিল তৃণমূল কংগ্রেস।

কী বলেছিলেন দিলীপ ঘোষ? শীতলকুচির ১২৬ নম্বর বুথে গোলমালের জেরে গুলি চালিয়ে দেয় কেন্দ্রীয় বাহিনী। মৃত্যু হয় ৪ জনের। এনিয়ে কেন্দ্রীয় বাহিনীর পক্ষে দাঁড়াতে গিয়ে একের পর এক সরব হন বিজেপি নেতারা। দিলীপ ঘোষ এনিয়ে বলেন, শীতলকুচিতে যে দুষ্টু ছেলেরা গুলি খেয়েছে তারা বাংলায় থাকবে না। যারা ভেবেছে কেন্দ্রীয় বাহিনী শুধুমাত্র দেখানোর জন্য বন্দুকটা এনেছে তারা বুঝেছে গুলির গরম কেমন। গোটা বাংলায় এটা হবে। কেউ আইন নিজের হাতে তুলে নিতে আসে তাহলে তাদের যোগ্য জবাব দেওয়া হবে।

দিলীপ ঘোষের ওই মন্তব্যের পরও তাঁকে ওই মন্তব্য়ের ব্যাখ্য়া দিতে বলে কমিশন। সেই নোটিসের জবাবও দিয়েছিলেন রাজ্য বিজেপি সভাপতি। কিন্তু সেই জাবাবে সন্তুষ্ট নয় কমিশন। তার পরই দিলীপের প্রচারে নিষেধাজ্ঞা জারি করল কমিশন। একইসঙ্গে আজ বিজেপি নেতা সায়ন্তন বসুকেও নোটিস দিয়েছে কমিশন। কারণ সেই শীতলকুচি কাণ্ড।  শোলে-র ডায়লগ মনে করিয়ে শীতলকুচি নিয়ে সায়ন্তন বসু বলেন,  ‘এক মারোগে তো চার মারেঙ্গে, শীতলকুচিতেও তাই হয়েছে।’ এনিয়ে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে সায়ন্তনকে।