Saturday, October 16, 2021
Homeরাজ্যদেবাঞ্জন কান্ডের জের, কোন অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে কি করতে হবে! বিধায়কদের গুরুত্বপূর্ণ...

দেবাঞ্জন কান্ডের জের, কোন অনুষ্ঠানে যাওয়ার আগে কি করতে হবে! বিধায়কদের গুরুত্বপূর্ণ বার্তা দিল তৃণমূল

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: ভোটের ফল এবং সরকার গড়ার হ্যাটট্রিক। তারপরের অন্তত কয়েকটা মাস চলার পথ যথেষ্ট মসৃণ হবে, এমনটাই প্রত্যাশা ছিল শাসকদলের।

কিন্তু কসবায় ঘটে যাওয়া ভুয়ো ভ্যাকসিন কাণ্ড বিরোধীদের হাতে অস্ত্র তুলে দিয়েছে। ফলে, মহামারী আইন জারি থাকা সত্ত্বেও কখনও বাম, কখনও বিজেপি রাস্তায় নেমে পড়ছে বিক্ষোভ দেখাতে। এই আবহেই সোমবার রাজ্য বিধানসভায় তৃণমূল কংগ্রেস পরিষদীয় দলের বৈঠক ডাকা হয়েছিল।

- Advertisement -

যেখানে একদিকে যেমন নতুন নির্বাচিত বিধায়কদের পরিষদীয় রীতিনীতি সম্পর্কে ওয়াকিবহাল করা হয় , অন্যদিকে দলের সব বিধায়কদের “কী করবেন, কী করবেন না” সে সম্পর্কে জানান হয়। বিধানসভার নওশাদ আলি কক্ষে এই বৈঠকে রীতিমত দলীয় বিধায়কদের ক্লাস নেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়, তাপস রায় প্রমুখ সিনিয়র নেতা। সূত্রের খবর, এদিন দলের তরফে বিধায়কদের মূলত যে বিষয়গুলো নিয়ে সতর্ক করা হয় তার মধ্যে অন্যতম হল, কসবা কাণ্ড থেকে দলীয় নেতাদের শিক্ষা নেওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়।

এদিনের বৈঠকে থাকা একাধিক বিধায়ক জানালেন, বিধায়কদের ক্ষেত্রে দলের নির্দেশ : কোন অনুষ্ঠানে যাচ্ছেন, আয়োজক কারা, আমন্ত্রিত তালিকায় কে কে আছেন, তা ভালোভাবে জেনে নিয়ে তবেই যাবেন। দেবাঞ্জন কাণ্ডের জেরে এই সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সোমবার তৃণমূলের পরিষদীয় দলের বৈঠকে দলের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দেওয়া হয় বিধায়কদের।

যদি কোনও ভাবে কোনও বিধায়কের সঙ্গে অসৎ উদ্দেশ্যের মানুষের কিংবা দুষ্কৃতীদের ছবি দেখা যায় তাহলে সংশ্লিষ্ট বিধায়ক-কেই কৈফিয়ৎ দিতে হবে দলের কাছে। বারবার করে সেলফি বা ছবি তোলার ক্ষেত্রে সতর্ক করা হয় বিধায়কদের। নতুন যারা ভোটে জিতে প্রথমবার বিধায়ক হয়েছেন তাঁদের স্থানীয় পুর প্রশাসকদের সঙ্গে সমন্বয় রেখে চলতে বলা হয়।

দেবাঞ্জন দেব – এর ক্ষেত্রে নতুন বিধায়ক লাভলি মৈত্র এবং সাংসদ মিমি চক্রবর্তী’র নাম প্রকাশ্যে আসে। পরে দলের একাধিক সিনিয়র নেতা ও মন্ত্রীদের ছবি সামনে আসে। ফলে এই বিশেষ সতর্কতা বলেই দলের একাধিক নেতার ধারণা। রাজনৈতিক মহল বলছে, ভোটের ফল বেরনোর পরে একদিকে দলের সাংসদ, বিধায়কের ব্যক্তিগত জীবনের টানাপোড়েন প্রকাশ্যে চলে আসা আর অন্যদিকে কসবার ঘটনা যথেষ্ট বিব্রত করেছে শাসকদলকে।

এদিকে পেট্রোপণ্য থেকে নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম বেড়ে যাওয়া সহ একাধিক ইস্যু নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারের বিরুদ্ধে এবার পথে নামছে তৃণমূল। ৬ই জুলাই থেকে আগামী ১১ই জুলাই তৃণমূল যুব কংগ্রেসের তরফে বিভিন্ন জেলায় প্রতিবাদ কর্মসূচির ঘোষণা করা হয়েছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!