আগামীকাল কলকাতা হাইকোর্টে নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: হাইকোর্টে নন্দীগ্রাম-মামলার শুনানি হতে চলেছে আগামিকাল, বুধবার। বিচারপতি কৌশিক চন্দ সরে দাঁড়ানোয় বিচারপতি শম্পা সরকারের এজলাসে হবে সওয়াল-জবাব।

নন্দীগ্রামের রায়কে চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে মামলা করেছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ওই কেন্দ্রে ১৯৫৬ ভোটে জিতেছেন বিজেপি প্রার্থী শুভেন্দু অধিকারী।

মুখ্যমন্ত্রীর নির্বাচনী পিটিশন মামলা ওঠে বিচারপতি কৌশিক চন্দের বেঞ্চে। বিচারপতি চন্দের সঙ্গে বিজেপি যোগের অভিযোগ তুলে প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। মামলা প্রভাবিত হওয়ার আশঙ্কায় অন্য বেঞ্চে সরানোর আর্জি করেন। বিচারপতি কৌশিক চন্দকেও চিঠি দেন। এরপর নন্দীগ্রাম মামলা থেকে নিজেকে সরিয়ে নেন বিচারপতি চন্দ।

একইসঙ্গে বিচারব্যবস্থাকে কলুষিত করার জন্য ৫ লক্ষ টাকা জরিমানার নির্দেশ দেন তিনি। সোমবার এজলাস বদল হয়। এরপর বুধবার দুুপুর আড়াইটেয় বিচারপতি শম্পা সরকারের এজলাসে মামলার শুনানি হতে চলেছে।

নন্দীগ্রামে ১৯৫৬ ভোটে শুভেন্দুর কাছে হেরেছেন মমতা। তৃণমূল বিপুল ভোটে জয়লাভ করলেও নন্দীগ্রামের ফল উল্টো হওয়ায় বিস্মিত হন দলনেত্রী। ফলপ্রকাশের দিন অর্থাৎ ২ মে তিনি বলেছিলেন, ”গোটা রাজ্যের থেকে আলাদা রায় দিল নন্দীগ্রাম, এটা হতে পারে না। আমি আদালতে যাব। কারণ আমার কাছে খবর আছে, ভোটের ফল ঘোষণার পর কারচুপি হয়েছে। সেটা খুঁজে বের করব।