রাত ৯টা পর বিধিনিষেধ ভাঙলে কড়া ব্যবস্থা, প্রতিটি জেলাকে সতর্ক করল নবান্ন

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: করোনা সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণে আসার সঙ্গে সঙ্গে শিথিল হয়েছে বিধিনিষেধ। রাত ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত কার্ফু এখনও বলবৎ।

কিন্তু অনেক জায়গায় তা মানা হচ্ছে না বলে অভিযোগ। নৈশ কার্ফু নিয়ে কোনও ধরনের শিথিলতা বরদাস্ত করতে চাইছে না রাজ্য সরকার। এবার আরও কঠোরভাবে কার্ফু কার্যকর করার জন্য প্রতিটি জেলার প্রশাসনকে নির্দেশ দিলেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী।

মে মাসের মাঝামাঝি থেকে রাজ্যে চালু হয়েছে বিধিনিষেধ। কয়েকটি ছাড় দিয়ে তা ৩০ জুলাই পর্যন্ত বাড়ানো হয়েছে। রাস্তায় এখন বাস চলছে। চালু হয়েছে মেট্রো। তবে লোকাল ট্রেন এখনও বন্ধ। খুলেছে দোকানপাট, সরকারি-বেসরকারি অফিস। কিন্তু জরুরি প্রয়োজন ছাড়া রাত ৯টা থেকে ভোর ৫টা পর্যন্ত সব কিছু বন্ধ রাখার নির্দেশ এখনও বলবৎ।

কিন্তু তা ঠিকভাবে মানা হচ্ছে বলে নবান্ন সূত্রের খবর। করোনা পরিস্থিতি নিয়ে জেলাশাসক ও জেলা মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন মুখ্যসচিব হরিকৃষ্ণ দ্বিবেদী। ওই বৈঠকে মুখ্যসচিব নির্দেশ দেন, নৈশ কার্ফু আরও কঠোরভাবে মানতে হবে। কেউ না মানলে কড়া পদক্ষেপ করতে হবে পুলিসকে। দরকারে জরিমানা করতে হবে।

তৃতীয় ঢেউ আসার আগে পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে যাক তা চায় না নবান্ন । একইসঙ্গে মানুষের রুটি-রুজির জন্য একাধিক ক্ষেত্রে শিথিল করা হয়েছে। কিন্তু নির্ধারিত সময়ের পরেও অনেক জায়গায় দোকান, অফিস খোলা রাখা হচ্ছে। চলছে যানবাহন। তাই সরকারি বিধি কার্যকর করতে প্রশাসনকে কঠোর হতে নির্দেশ দিল রাজ্য সরকার।