Sunday, September 26, 2021
Homeজেলাবাঁকুড়াএকুশের আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ক। মুর্তি বিতর্কের মাঝেই পুয়াবাগানে সবথেকে বড় বিরসা মুন্ডার...

একুশের আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ক। মুর্তি বিতর্কের মাঝেই পুয়াবাগানে সবথেকে বড় বিরসা মুন্ডার মুর্তি বসানোর উদ্যোগ শাসক গোষ্ঠীর।

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭(বাঁকুড়া):-একুশের আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ক। মুর্তি বিতর্কের মাঝেই পুয়াবাগানে সবথেকে বড় বিরসা মুন্ডার মুর্তি বসানোর উদ্যোগ শাসক গোষ্ঠীর।
অমিত শাহর শ্রদ্ধা জানানো মূর্তি আসলে আদিবাসীদের মহান নেতা বিরসা মুন্ডার নাকি তা আদিবাসী সম্প্রদায়ের কোনো শিকারীর প্রতীকী মূর্তি এই নিয়ে শাসক বিরোধী দলের তরজার মাঝেই এবার ওই একই জায়গায় বিরসা মুন্ডার সর্বোচ্চ মূর্তি বসানোর পথে একধাপ এগিয়ে গেল রাজ্যের শাসক দল । আজ তৃনমূল নেতারা একাধিক আদিবাসী সংগঠনের প্রতিনিধিদের নিয়ে পুয়াবাগান এলাকায় মূর্তি স্থাপনের স্থান নির্বাচন করেন । যা নিয়ে অবশ্য কটাক্ষ করতে ছাড়েনি বিজেপি ।
গত ৫ নভেম্বর বাঁকুড়া সফরে যান দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহ । বাঁকুড়ায় পৌঁছেই পুয়াবাগান এলাকায় থাকা একটি মূর্তিকে বিরসা মুন্ডার মূর্তি দাবি করে সেই মূর্তিতে শ্রদ্ধা জানান । আর তাতেই শুরু হয় রাজনৈতিক জলঘোলা । বাঁকুড়া থেকে অমিত শাহ বিদায় নিতেই পরের দিন মূর্তি স্থলে হাজির হয়ে ঐ মূর্তি বিরসা মুন্ডার মূর্তি নয় বরং তা একটি আদিবাসী শিকারীর প্রতীকী মূর্তি দাবি করে মূর্তিটি শুদ্ধিকরন করেন তৃনমূল নেতৃত্ব ও একাধিক আদিবাসী সংগঠনের প্রতিনিধিরা । এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতেই গতকাল বিরসা মুন্ডার জন্মদিনে ফের পুয়াবাগানে হাজির হয়ে ওই মূর্তির শুদ্ধিকরন করেন আদিবাসীদের একটি অংশ । ঐ মূর্তি আসলে বিরসা মুন্ডারই দাবি করে তাঁর প্রতি শ্রদ্ধাও জানানো হয় । অনুষ্ঠানে হাজির থেকে মূর্তিতে ফুল দিয়ে বিরসা মুন্ডার প্রতি শ্রদ্ধা জানান বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকার । আর সেই ঘটনার ২৪ ঘন্টা কাটতে না কাটতেই ফের মূর্তি প্রসঙ্গে রাস্তায় নামতে দেখা গেল তৃনমূল ও বেশ কয়েকটি আদিবাসী সংগঠনের কর্মীদের । আজ পঞ্চায়েত দফতরের রাষ্ট্র মন্ত্রী তথা তৃনমূলের বাঁকুড়া জেলা সভাপতি শ্যামল সাঁতরার নেতৃত্বে পুয়াবাগানে যান তৃনমূল নেতাদের একাংশ ও আদিবাসী সংগঠনগুলির কর্মীরা । এদিন তাঁরা পুয়াবাগান এলাকায় শিকারীর মূর্তির পাশেই একটি স্থানে বিরসা মুন্ডার বিশালাকার মূর্তি স্থাপনের জন্য স্থান নির্বাচন করেন । ওই স্থানে নারকেল ফাটিয়ে দ্রুত বিরসা মুন্ডার মূর্তি স্থাপনের সূচনা করেন । এদিনের অনুষ্ঠানে যোগ দেওয়া তৃনমূল নেতা আদিবাসী সংগঠনের প্রতিনিধিদের দাবি শিকারীর মূর্তিকে মালা দিয়ে বিজেপি আদিবাসীদের ভগবান বিরসা মুন্ডাকে অসম্মান করেছেন । তাই বিরসা মুন্ডার মূর্তি আসলে কেমন তা বিজেপি নেতাদের দেখানোর জন্যই ওই স্থানে মূর্তি স্থাপনের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে । তৃনমূল আদিবাসীদের প্রতি যে বঞ্চনা করেছে সেই পাপের প্রায়শ্চিত্ত করতেই এই কান্ড করছে কটাক্ষ বাঁকুড়ার বিজেপি সাংসদ সুভাষ সরকারের ।
আর কয়েক মাস পরেই রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচন । উৎসবের মরসুম মিটলেই কোমর বেঁধে মাঠে নামবে শাসক বিরোধী সব শিবির । জঙ্গলমহলের জেলাগুলিতে বেশ কিছু বিধানসভা কেন্দ্রে আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্কই নির্নায়ক । সেক্ষেত্রে বিরসা মুন্ডা মূর্তি বিতর্ক জিইয়ে রেখে আসলে কি দুপক্ষই আদিবাসী ভোট ব্যাঙ্ককে নিজেদের পক্ষে টানার চেষ্টা করছে ? অন্তত তেমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!