Saturday, August 13, 2022
HomeজেলাবীরভূমBirbhum: দল বিরোধী কাজের জন্য জেলা কমিটির সদস্যকে বহিষ্কার করল বিজেপি
Advertisement

Birbhum: দল বিরোধী কাজের জন্য জেলা কমিটির সদস্যকে বহিষ্কার করল বিজেপি

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: কোন্দল আরও বাড়ল বিজেপিতে। দল বিরোধী কাজের জন্য জেলা কমিটির সদস্য নলহাটির অনিল সিংকে বহিষ্কার করল বিজেপি। যদিও অনিল সিং জানান, তিনি দল বিরোধী কোনও কাজ করেন নি। দল তাঁকে ছাড়লেও তিনি দল ছাড়ছেন না। তিনি বর্তমান জেলা সভাপতি ধ্রুব সাহার বিরুদ্ধে সরব হয়েছিলেন। তাই তাঁর বিরুদ্ধে দল এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

তবে অনিল সিংয়ের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ নেওয়ায় বিজেপির ক্ষমতাসীন গোষ্ঠী খুশি। তাদের মতে না হলে লাগাম ছাড়া বিরোধিতা শুরু হয়েছে বীরভূমে। এ প্রসঙ্গে জেলা সভাপতি ধ্রুব সাহা বলেন, “রাজ্য বিজেপির শৃঙ্খলা রক্ষা কমিটি এই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। দলের শৃঙ্খলা সবাইকে মানতে হবে।”

একই নলহাটি এলাকার বাসিন্দা ধ্রুব সাহা ও অনিল সিং। অনিল সিং দলের পুরনো নেতৃত্বের মধ্যে অন্যতম। ২০১১, ২০১৩ ও ২০১৬, পরপর তিনবার নলহাটি বিধানসভা কেন্দ্রের বিজেপির প্রার্থী ছিলেন। নলহাটির পুরভোটে ৫ নম্বর ওয়ার্ডের প্রার্থী হয়েছিলেন। এমনকি দলের শুরুতে নলহাটির মণ্ডল সভাপতির দায়িত্বও সামলেছেন।

ধ্রুব সাহাকে জেলা সভাপতির দায়িত্ব দেওয়ার পর তিনিই সর্বত্র সরব হন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি উল্লেখ করেন, ‘চোর, বাটপার, দূর্নীতিবাজদের ধরে কেন্দ্রীয় বাহিনী। সেই তারাই আবার বিজেপির জেলা সভাপতি এক চিটিংবাজ চোরকে পাহারা দিচ্ছে।” উল্লেখ্য ধ্রুব সাহা চিটফান্ড সংস্থায় আর্থিক অনিয়মের অভিযোগে জেল খেটেছেন।

বর্তমানে তিনি বীরভূম জেলায় দলের সভাপতি হিসাবে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দেহরক্ষী পান। তাঁর এই বক্তব্যকে ভালভাবে নেয়নি দল। সব শেষে কালোসোনা মণ্ডলকে গত সপ্তাহে সিবিআই ডাকা প্রসঙ্গে ধ্রুব সাহার বক্তব্যকে ঘিরে দলের কর্মীদের মধ্যে বিভ্রান্তি তৈরি করার চেষ্টা করেন বলে অভিযোগ অনিলবাবুর বিরুদ্ধে।

তিনি দাবি করেন, অবিলম্বে ধ্রুব সাহাকে সভাপতির পদ থেকে সরানো উচিত। তবে বিজেপির কার্যালয় সম্পাদক প্রণয় রায়ের বহিস্কারের চিঠি পেয়ে অনিল সিং জানান, রাজ্য বা কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের বিরুদ্ধে তাঁর কোনও ক্ষোভ নেই। তাঁদের মিটিং মিছিলে তিনি যাবেন। যেমন কর্মী সমর্থক নিয়ে যেতেন সেভাবেই যাবেন তবে ধ্রুব সাহা যতদিন দলের দায়িত্বে থাকবেন, তাঁর বিরুদ্ধে তিনি সরব হবেন। কারন তাঁর মতে দিনে বিজেপি ও রাতে তৃণমূল হিসাবে জেলায় কাজ করছেন বিজেপির জেলা সভাপতি।

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!