কাজের সূত্রে ভিনরাজ্যে আটকে স্বামী, অভিমানে আত্মঘাতী স্ত্রী

KHARAGPUR 24X7: ভালোবেসে বিয়ে করেছিলেন। কিন্তু করোনা পরিস্থিতিতে স্বামী আটকে পড়েছেন ভিনরাজ্যে। বারবার বলা সত্ত্বেও বাড়ি ফিরছেন না। অভিমানে শেষপর্যন্ত আত্মহত্যা করলেন বছর আঠেরোর এক তরুণী। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলিতে।

স্থানীয় সূত্রে খবর, মৃতের নাম পুজা হালদার। বাড়ি, কুলতলি থানার চুপড়িঝাড়া গ্রামে। বছর দুয়েক আগে ভালোবেসে সুদাম হালদার নামে এক যুবককে বিয়ে করেন তিনি। কিন্তু স্বামী-স্ত্রীর আর একসঙ্গে বেশিদিন থাকা হয়নি। কারণ, বিয়ের পর কাজের জন্য তামিলনাড়ু চলে যেতে হয় সুদামকে। তবে, মাঝেমধ্যেই বাড়ি আসতেন তিনি।

করোনা সতর্কতায় এখন বিধিনিষেধের কড়াকড়ি চলছে রাজ্যে। কার্যত লকডাউনে চলছে না বাস, এমনকী ট্রেনও। ফলে ফেরার আর কোনও উপায় নেই। জানা দিয়েছে, প্রায় ৯ মাস হয়ে গিয়েছে, বাড়িতে আসতে পারেননি সুদাম। বস্তুত, টিকিটও কেটে ফেলেছিলেন, কিন্তু ট্রেন চলাচল বন্ধ হওয়ার কারণে তামিলনাড়ুতে আটকে পড়েন তিনি।

বুধবার দুপুরে যখন ফোন করেন, তখন সুদামকে বাড়ির ফেরার কথা বলেন পুজা। তিনি সাফ জানিয়ে দেন, ট্রেন চালু না হলে ফিরতে পারবেন না। এরপর আত্মহত্যা করেন ওই যুবকের স্ত্রী। ঘটনার আকস্মিকতায় হতবাক হয়ে দিয়েছে সকলেই। এলাকায় শোকের ছায়া।