Thursday, September 23, 2021
Homeজেলাহাওড়াবৃদ্ধা মা-কে খুন করে আত্মঘাতী ছেলে,হাওড়ায় তীব্র চাঞ্চল্য

বৃদ্ধা মা-কে খুন করে আত্মঘাতী ছেলে,হাওড়ায় তীব্র চাঞ্চল্য

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: পারিবারিক অশান্তির জের? মা-কে খুন করে আত্মঘাতী ছেলে। বাড়ির দরজা ভেঙে জোড়া মৃতদেহ উদ্ধার করল পুলিস। ঘরের মেঝেতে পাওয়া গেল রক্তমাখা ব্লেড! ঘটনাকে কেন্দ্র করে চাঞ্চল্য ছড়াল হাওড়ায়।

ঘটনাটি ঠিক কী? জানা গিয়েছে, মধ্য হাওড়ায় ভৈরব বেড লেনের বাসিন্দা অভিষেক হাইত। একটি ইলেকট্রিক্যাল মোটরের দোকান ছিল তাঁর। বছর দেড়েক আগে বিয়েও করেছিলেন। দোতলা বাড়়িতে স্ত্রী ও বৃদ্ধা মা-কে নিয়ে থাকতেন অভিষেক। দিন পনেরো আগে অবশ্য বাপের বাড়ি চলে গিয়েছিলেন স্ত্রী। এদিন দুপুরে বন্ধ ঘর থেকে মা ও ছেলের গোঙানির শব্দ পান পরিবারের লোকেরাই।

- Advertisement -

আত্মীয়-স্বজনদেরই শুধু নয়, খবর দেওয়া হয় থানায়ও। দরজা ভেঙে যখন পুলিস যখন ঘরে ঢুকে, তখনও বেঁচে ছিলেন অভিষেক। হাওড়া জেলা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই মারা যান তিনি। ছেলের পাশেই মেঝে-তে পড়েছিল  মা কৃষ্ণা  হাউতের রক্তাক্ত দেহ।

পরিবারের লোকেদের দাবি, ইদানিং ব্যবসা একেবারেই ভালো চলছিল না। বিপুল লোকসানের মুখে পড়েছিলেন অভিষেক। বাজারে অনেক দেনাও হয়ে গিয়েছিল। সেকারণেই শ্বশুরবাড়ি থেকে নগদ ২ লক্ষ টাকা ও সোনার গয়না ধার নিয়েছিলেন তিনি। ওই সোনার গয়না বন্ধক রেখে ঋণ শোধ করেছিলেন।

অভিযোগ, নগদ টাকা ও গয়না ফেরতে চেয়ে অভিষেক ও তাঁর মায়ের উপর লাগাতার চাপ সৃষ্টি করছিলেন স্ত্রী ও শ্বশুরবাড়ির লোকেরাও। স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে বিবাদও চরমে পৌঁছে গিয়েছিল। গত পরশু আবার বাড়িতে এসে চরম অপমান করে যান অভিষেকের শ্বশুরবাড়ির লোকেরা।

এই ঘটনার তদন্তে নেমে মৃতের বাড়ির ও শ্বশুরবাড়ির লোকেদের জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিস। যদিও টাকা ও গয়না চেয়ে মানসিক নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন অভিষেকের স্ত্রী দেবিনার আত্মীয়রা। বরং তাঁদের দাবি, খুব বেশিদিন বিয়ে হয়নি দু’জনের।

ব্যবসার কারণ দেখিয়ে শ্বশুরবাড়ি থেকে কয়েক লক্ষ টাকা ও সোনার গয়না ধার নিয়েছিলেন অভিষেক। এমনকী, সেই গয়না আবার বিক্রিও করে দিয়েছিলেন! টাকার ফেরত চাওয়া হত, তবে কোনও অত্যাচার করা হয়নি।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!