প্রথম বার ভোট দিতে গিয়ে শীতলকুচিতে চলে গেল ১৮-র কিশোরের প্রাণ

খড়গপুর ২৪×৭: ভোটগ্রহণ শুরুর পর থেকেই ক্রমেই উত্তপ্ত হয়ে উঠছে কোচবিহারের শীতলকুচি। শীতলকুচিতে ভোটের লাইনে গুলি চলল। ঘটনার জেরে একজনের মৃত্যু হয়েছে। মৃত ১৮-২০ বছরের নতুন ভোটার বলে জানা গিয়েছে। তৃণমূলের তরফে দাবি করা হয়েছে, ওই তরুণ তাঁদের সমর্থক। যদিও পাল্টা পরিবারের তরফে জানানো হয়েছে, ওই তরুণ বিজেপির সমর্থক ছিলেন। তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের গুলিতে তাঁর মৃত্যু হয়েছে।

জানা গিয়েছে মৃত কিশোরের নাম আনন্দ বর্মন। সকাল থেকেই শীতলকুচিতে তৃণমূল বিজেপির সংঘর্ষ শুরু হয়। সেই সংঘর্ষের সময় ভোটার লাইন থেকে থুটে পালাতে গেলে ওই কিশোরের মৃত্যু হয়। এবারেই প্রথম আনন্দ ভোট দিচ্ছিলেন বলে জানা গিয়েছে।

সকাল থেকেই কোচবিহারের শীতলকুচি অশান্ত। শীতলকুচির জোরা পাটকিতে ভোটারদের ভোটদানে বাধা দেওয়া হয়। ২৬৫ নম্বর বুথে বিজেপির পোলিং এজেন্টকে ভোটদানে বাধা দেওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। পাশাপাশি শীতলকুচির পাগলাপীরে চলল গুলি। বিজেপি গুলি চালিয়েছে বলে তৃণমূল অভিযোগ করেছে, বিজেপি গুলি চালিয়েছে। পাশাপাশি তৃণমূল কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছে। অন্য দিকে,  কোচবিহারের শীতলকুচি বিধানসভা কেন্দ্রের পাগলাপিতে বিজেপি কর্মীদের ওপর মারধরের অভিযোগ উঠেছে। ঘটনার জেরে এক বিজেপি কর্মী গুরুতর জমখম হয়েছেন। তাঁকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়েছে। ঘটনার প্রতিবাদে পথ অবরোধ করে বিজেপি। ঘটনাস্থলে পুলিশ ও কেন্দ্রীয় বাহিনী হাজির হয়েছে। তবে তৃণমূলের তরফে এই বিষয়ে এখনও কোনও প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

শনিবার রাজ্যে চতুর্থ দফায় ভোট গ্রহণ শুরু হয়েছে। পাঁচটি রাজ্যের ৪৪টি কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। ভোটগ্রহণ শুরুর পর থেকেই বিভিন্ন জায়াগা থেকে অশান্তির খবর আসতে শুরু করেছে। যাদবপুরে বিজেপি এজেন্টের মুখ ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে। অন্য দিকে, পাটুলিতে সিপিএমের মহিলা এজেন্টকে বসতে বুথে বসতে বাধা দেওয়া হয়েছে। বেহালা পূর্বে বিজেপি কর্মীর বাড়িতে হামলার অভিযোগ উঠেছে তৃণমূলের বিরুদ্ধে।