Saturday, October 16, 2021
Homeজেলাকলকাতাবড়বাজারে পুরানো বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত্যু হলো দু’জনের

বড়বাজারে পুরানো বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত্যু হলো দু’জনের

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: আহিরীটোলার পর ফের কলকাতায় ভেঙে পড়ল বাড়ি। বড়বাজারের মেছুয়াপট্টিতে পুরানো বাড়ির একাংশ ভেঙে মৃত্যু হলো দু’জনের। তাঁরা দু’জনেই কাজের শেষে বাড়ি ফিরছিলেন।

শনিবার সন্ধ্যা সওয়া সাতটা নাগাদ জোড়াসাঁকোর রবীন্দ্রসরণিতে এই তিনতলা বাড়ির ঝুলন্ত বারান্দা ভেঙে পড়ে। পুরানো ওই বাড়িটির তিনতলার বারান্দার একাংশ ভেঙে রাস্তার ওপর পড়লে পাঁচজন চাপা পড়েন।

- Advertisement -

এঁদের মধ্যে স্কুটার আরোহী কুড়ি বছরের মহম্মদ তৌফিক এবং পথচারী ছেচল্লিশ বছরের রাজীব গুপ্ত ঘটনাস্থলেই মারা যান। গুরুতর আঘাত নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন আরও দুই পথচারী।

পুলিশ সূত্রে খবর, মহম্মদ তৌফিকের বাড়ি এন্টালির গোরাচাঁদ রোডে। স্কুটিতে করে রবীন্দ্রসরণি দিয়ে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনার কবলে পড়েন তিনি। ভেঙে পড়া বাড়ির কংক্রিটের স্তূপের নিচে আটকা পড়ে যান। পরে তাঁকে উদ্ধার করে কলকাতার মেডিক্যাল কলেজে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ভাঙা কংক্রিটের চাঁই মাথায় পড়ে অতিরিক্ত রক্তক্ষরণে মৃত্যু ঘটে পথচারী রাজীব গুপ্তের। দমদমের কেপি শাহ স্ট্রিটের এই বাসিন্দা কাজ থেকে বাড়ি ফেরার পথে দুর্ঘটনায় মধ্যে পড়েন। তাঁকে উদ্ধার করে স্থানীয় বিশুদ্ধানন্দ হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসকরা মৃত বলে ঘোষণা করেন।

ঘটনায় আরও দু’জন গুরুতর আহত হয়েছেন। আহতদের নাম প্রদীপ দাস ও সুভাষ হাজরা। দু’জনের শরীরে একাধিক জায়গায় আঘাত লেগেছে। প্রদীপ দাসের বাড়ি উত্তর ২৪ পরগনার নিমতার সপ্তগ্রামে। সুভাষ হাজরার বাড়ি হুগলীর গোঘাটে।

দু’জনকেই কলকাতা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। সেখানে চলছে চিকিৎসা। হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে, সুভাষ হাজরার চোট বেশ গুরুতর।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন, মেছুয়াপট্টির এই বাড়িটি বহুদিনের পুরানো। তবে এই বাড়িকে বিপজ্জনক বলে কলকাতা কর্পোরেশন চিহ্নিত করেছে কি না তা স্পষ্ট নয়। শহরজুড়ে রয়েছে বহু পুরানো বাড়ি। এদের মধ্যে প্রায় ৪ হাজার বিপজ্জনক বাড়ি ও প্রায় ৫০০ অতি বিপজ্জনক হিসাবে চিহ্নিত।

কয়েকদিন আগেই আহিরীটোলায় বাড়ি ভেঙে পড়ার ঘটনায় নতুন করে প্রশ্ন উঠেছে সেই সব বাড়ির নিরাপত্তা নিয়ে। এরমধ্যেই আবার মেছুয়াপট্টির ঘটনা উৎসবের মুখে নতুন চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!