Saturday, May 28, 2022
Homeজেলাকলকাতাপুরোনো রাজনৈতিক সঙ্গীর উপর ভরসা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী,কলকাতার মেয়র হলেন ফিরহাদ হাকিম
Advertisement

পুরোনো রাজনৈতিক সঙ্গীর উপর ভরসা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী,কলকাতার মেয়র হলেন ফিরহাদ হাকিম

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: পুরোনো রাজনৈতিক সঙ্গী ফিরহাদ হাকিমের ওপরেই ভরসা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতার মেয়র হলেন ফিরহাদ হাকিম। চেয়ারম্যান করা হল মালা রায়কে।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

বৃহস্পতিবার মহারাষ্ট্র নিবাস হলে কাউন্সিলরদের বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সামনে একথা ঘোষণা করেন তৃণমূলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সী। এদিন মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকে বলেন, “সবাইকে হয়তো জায়গা দিতে পারব না। ৪০ জন নতুন মুখ এসেছে। তাদের সবাইকে ভালো করে কাজ শিখতে হবে।

মনে রাখবেন ভালো কাজ করলে মানুষ প্রশংসা করবে। খারাপ কাজ করলে মানুষের কাছে ভুল বার্তা যাবে। আজ থেকেই এলাকা ক্লিন করতে শুরু করবেন। যদিও আপনাদের শপথ এখনও হয়নি। সব হোর্ডিং, পোস্টার খুলে ফেলতে হবে। এর পর রাস্তা ক্লিয়ার, রং করা, নিকাশি দেখা, ডেঙ্গু সব বিষয়ে দেখতে হবে। আগামী ৬ মাস বাদেই রিপোর্ট কার্ড নেব।”

মুখ্যমন্ত্রী এদিন আরও বলেন, “এত শান্তিপূর্ণ নির্বাচন ভারতে কোথাও দেখাতে পারবেন না। রাজ্য নির্বাচন কমিশন ও কলকাতা পুলিশকে ধন্যবাদ এত শান্তিপূর্ণ নির্বাচন করার জন্য়। যত জিতব, তত নম্র হবে। অহংকারের কোনও জায়গা তৃণমূলে নেই।” নির্বাচিত কাউন্সিলরদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ”রাস্তায় এদিক ওদিক চেয়ে যাবেন। কোথায় লাইট নেই, কোথায় রাস্তা খারাপ দেখবেন।

পিচের ওপর পিচ তুলে মাঝেরহাট সেতু গেছে। টাকা এত সস্তা নয়। কথা কম, কাজ বেশি করবেন। দল এখন অনেক কঠোর। সবাইকে সব দেওয়া যায় না। ৪২% মহিলা প্রার্থী দেওয়া হয়েছিল। তৃণমূলের সম্পর্ক আসলে মাটির সঙ্গে। দল যখন তৈরি করেছিলাম তখন থেকেই মা মাটি মানুষের কথা বলেছি।”

কলকাতার পুরভোটে ১৪৪টি আসনে ১৩৪ জন বিজয়ী তৃণমূল প্রার্থীদেরকেই ওই বৈঠকে থাকার জন্য নির্দেশ দেওয়া হয়েছে দলের পক্ষ থেকে। তবে, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে সম্ভবত এদিন নতুন মেয়র করা হতে পারে ফিরহাদ হাকিমকে।

কারণ, পুরভোটের গণনা চলাকালীন যখন বিপুল ভোটে তৃণমূল জয়ের পথে, ঠিক তখনই ফিরহাদ হাকিমকে কালীঘাটে ডেকে কথা বলেছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেই সময় সেখানে ছিলেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ও। সেদিনের সেই বৈঠক যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ বলেই মনে করছেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা।

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!