Saturday, December 10, 2022
Homeজেলাকলকাতাদূয়ারে রেশন প্রকল্পকে বেআইনি ঘোষনা করলো কলকাতা হাইকোর্ট
Advertisement

দূয়ারে রেশন প্রকল্পকে বেআইনি ঘোষনা করলো কলকাতা হাইকোর্ট

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: দূয়ারে রেশন প্রকল্পকে বেআইনি ঘোষনা করলো কলকাতা হাইকোর্ট। বুধবার হাই কোর্টের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে যে পশ্চিমবঙ্গ সরকারের এই প্রকল্প সম্পূর্ন ভাবে খাদ্য সুরক্ষা আইনের বিপরিত। ২০২১ সালের বিধানসভা নির্বাচনের পর এই প্রকল্প চালু করে মমতা ব্যানার্জির সরকার। রাজ্য সরকার এই প্রকল্প চালু করলে সেই সময় রেশন ডিলারদের পক্ষ থেকে দাবি করা হয় যে এই প্রকল্প কখনও চালু করা যায় না কারণ এই প্রকল্প খাদ্য সুরক্ষা আইন ২০১৩ র পরিপন্থী।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

সেই সময় তাদের সেই কথার কোন মান্যতা দেয়নি রাজ্য। যার ফলে আদালতের দারস্থ হন রেশন ডিলারদের একটা বড় অংশ। তাদের করা সেই মামলাতেই বুধবার মুখ পুড়লো রাজ্য সরকারের।

বুধবার আদালতের পক্ষ থেকে বিচারপতি চিত্তরজ্ঞন দাস এবং বিচারপতি অনিরুদ্ধ রায়ের ডিভিশন বেঞ্চ স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে যে এই প্রকল্পের কোন আইনি বৈধতা নেই। মামলাকারিদের পক্ষ থেকে আদালতের লড়াই করেন আইনজীবী পিঙ্গল ভট্টাচার্য্য। গণশক্তি ডিজিটালের পক্ষ থেকে তার সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘রাজ্য সরকারের এই প্রকল্প ২০১৩ সালে খাদ্য সুরক্ষা আইনের পরিপন্থী। কারণ ওই আইনে উল্লেখ করা হয়েছে যে রেশন সামগ্রী রেশন দোকান থেকে দেওয়া হবে।

তা কোন বাড়িতে গিয়ে দিয়ে আসা হবে না। কিন্তু দুয়ারে রেশনে বলা হয়েছিল যে রেশন বাড়ি বাড়ি পৌঁছে দেবে রাজ্য সরকার। ২০১৩ সালের আইনে যা বলা আছে তাকে সামনে রেখেই আমরা আদালতে সাওয়াল করি। আদালত আমাদের কথাকে মান্যতা দিয়েছে।’  

প্রসঙ্গত দিল্লির কেজরিওয়াল সরকারও এই একই প্রকল্প চালু করেছিল। কিন্তু তাদেরও আদালতের কথায় সেই প্রকল্প বন্ধ করতে হয়। তবে এই রাজ্যে নামে দুয়ারে রেশন হলেও রেশন বাড়িতে সরাসরি পৌঁছে দেওয়া হতো না। কোন কোন দিন কোন কন এলাকার নির্দিষ্ট জায়গায় রেশন ডিলার গাড়ি নিয়ে দাঁড়িয়ে থাকতেন এলাকার মানুষদের সেখান থেকে রেশন নিতে হতো। যার ফলে সাধারণ মানুষের দূর্ভোগ কোন ভাবেই কমেনি এই প্রকল্পের কারণে। অন্যতম মামলাকারি বিশ্বম্ভর বসুর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘আমরা প্রথম থেকেই এই প্রকল্পের বিরোধী।

আমরা কখনই চাই না যে আমাদের গ্রাহকরা রাস্তায় এসে লিইনে দাঁড়িয়ে জিনিস নিক। বিগত ১৩ মাস আমরা এই লড়াই আদালতে লড়েছি। আজ এই রায় আমাদের কাছে শারদীয়ার উপহারের সমান।’ তিনি আরও জানান যে নিয়ম অনুযায়ী রেশন সামগ্রী যদি দোকানের বাইরে বিক্রি করা হয় তবে তাকে কালো বাজারি হিসাবে চিহ্নিত করা হয়। সেই ক্ষেত্রে এই প্রকল্প মেনে রেশন বাইরে এনে বিক্রি করা কালো বাজারির সমান।  

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!