নিউটাউনে পুলিশের সঙ্গে দুষ্কৃতীদের গুলির লড়াই, নিহত ২

KGP 24X7: পুলিশের সঙ্গে দুষ্কৃতীদের গুলির লড়াইয়ে মৃত্যু হল দুই দুষ্কৃতীর। জানা গিয়েছে, নিউটাউনের সাপুরজি এলাকায় কলকাতা পুলিশের এসটিএফ টিমকে লক্ষ্য করে গুলি চালায় একদল দুষ্কৃতী। পালটা এনকাউন্টারে মৃত্যু হয় দুই দুষ্কৃতীর। ১ পুলিশ কর্মীও আহত হয়েছেন৷ ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে এলাকায়।

এসটিএফ সূত্রে জানা গিয়েছে, আবাসনের নীচে লুকিয়ে ছিল দুষ্কৃতীরা। তাদের গ্রেফতার করার জন্য পুলিশ গেলেই শুরু হয় গুলির লড়াই। যে দুই দুষ্কৃতীর মৃত্যুর খবর মিলেছে, তাঁরা পঞ্জাবের মোস্ট ওয়ান্টেড গ্যাংস্টার৷ এদের মধ্যে একজনের নাম জয়পাল ভুল্লার ওরফে জসপিৎ। গুলির লড়াইয়ে আহত হয়েছে এসটিএফ ওসি কার্তিকমোহন ঘোষ। তাঁকে নিকটবর্তী বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা গিয়েছে, সম্প্রতি বীরভূম থেকে অস্ত্র পাচারকাণ্ডে ১ জনকে গ্রেফতার করে রাজ্য পুলিশের এসটিএফ। বিহার থেকে বীরভূম দিয়ে রাজ্যে ঢুকছিল অস্ত্র। ওই দুষ্কৃতীকে জেরা করে এসটিএফের তদন্তকারীরা জানতে পারেন, ওই চক্রের কয়েকজন লুকিয়ে আছে নিউটাউনের শাপুরজি পালোনজির আবাসনে।

বুধবার দুপুরে তাঁদের পাকড়াও করতে অভিযান চালান এসটিএফ টিম। লুকিয়ে থাকা দুষ্কৃতীরা আচমকাই পুলিশ অফিসারদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়তে থাকেন। পালটা গুলি চালান পুলিশ কর্মীরা৷ ঘটনাস্থলেই নিহত হয় দুই দুষ্কৃতী। এরপরই ঘটনাস্থলে যান বিধাননগরের পুলিশ কমিশনার সুপ্রতিম সরকার ও এসটিএফ-এর বিশাল টিম। বাকি দুষ্কৃতীদের খোঁজে তল্লাশি চালানো হচ্ছে বলে খবর।

জানা গিয়েছে, এর আগে পঞ্জাবের এই গ্যাংস্টার জগরাও জেলার এএসআই-কে খুন করেছিল। কলকাতায় কী অপরেশন চালাতে এসেছিল সে? এর পিছনে কারা রয়েছে? কলকাতায় কাদের সঙ্গে তাদের যোগাযোগ? কোনও রাজনৈতিক যোগ রয়েছে কিনা, সবকিছুই  জানতে তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ।