কলকাতায় সেনায় কর্মীর পরিচয় দিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতানোর অভিযোগ,গ্রেফতার যুবক

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: আবারও জালিয়াতি করার অভিযোগে পুলিশের জালে ধরা পড়ল এক যুবক। কলকাতায় সেনায় কর্মী পরিচয় দিয়ে বেকার যুবকদের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগে বৃহস্পতিবার দুপুরে পুলিশের জালে ধরা পড়ল রাজেশ প্রসাদ নামে বছর ৩৪ এর এক যুবক।

ধৃত যুবকের বাড়ি সাঁকরাইলের  রাজগঞ্জে । নিজেকে সেনা জওয়ান পরিচয় দিয়ে বেকার যুবকদের  চাকরি দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা প্রতারণা করে হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ রয়েছে  রাজেশ প্রসাদের নামে।  বেশ কয়েক বছর ধরে এলাকার বেকার যুবকদের সেনা বাহিনীর  বিভিন্ন পদে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার টোপ দেয় সে।

এই চাকরির টোপ দিয়ে প্রত্যেকের কাছ থেকে ৩ থেকে সাড়ে ৩ লাখ টাকা করে হাতিয়ে নেয় রাজেশ। প্রথমে বেকার যুবকদের চাকরির জন‍্য ভূয়ো  ফরম ফিলআপ করায় রাজেশ। এরপর গত বছর বিভিন্ন পরীক্ষার নাম বেকার  যুবকদের রাজ‍্যের বাইরে নিয়ে যায় রাজেশ ।  ওইসব পরীক্ষায় তারা উত্তীর্ণ হয়ে গেছে বলে তাদের ভুয়ো সার্টিফিকেটও দিয়ে দিয়েছিল রাজেশ।

কিন্তু বছর ঘরে গেলেও চাকরি না পেয়ে সন্দেহ হয় ওই যুবকদের। তারা তাকে চেপে ধরলে সে টাকা ফিরিয়ে  দিতে তাদের চেক দেয়। কিন্তু ওই যুবকরা ব্যাঙ্কে চেক জমা দিলে তা ‘বাউন্স’ হয়ে যায়। গাড়িতে সেনা বাহিনীর স্টিকার লাগিয়ে ঘুরে বেড়াত। ভিজিটিং কার্ডও ছাপিয়েছিল সে। এগুলি আদৌ সত্যি কিনা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। চেক বাউন্স হতেই যুবকরা সাঁকরাইল থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।

এরপরই সাঁকরাইল থানার পুলিশ তদন্তে নেমে বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজেশকে গ্রেপ্তার করে। তার কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ নথিপত্র। সেসবই পরীক্ষার জন্য পুলিশের তরফে কলকাতায়  সেনাবাহিনীর হেড অফিসে পাঠানো হয়েছে। হাওড়া সিটি পুলিশের উচ্চ পদস্থ আধিকারিক জানান ঘটনার  ‘তদন্ত চলছে।

রাজেশ প্রসাদ সেনাবাহিনীতে কাজ করে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। তার কাছ থেকে বাজেয়াপ্ত করা নথিপত্র পরীক্ষা করে দেখা হচ্ছে। তার বিষয়ে বিস্তারিত জানতে ফোর্ট উইলিয়মে যোগাযোগ করা হচ্ছে।’