Sunday, September 19, 2021
Homeজেলাপশ্চিম বর্ধমানদুর্গাপুরে অমানবিকতার ছবি, অসুস্থ বৃদ্ধ বাবাকে ফেলে পালাল ছেলে-বৌমা

দুর্গাপুরে অমানবিকতার ছবি, অসুস্থ বৃদ্ধ বাবাকে ফেলে পালাল ছেলে-বৌমা

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: অমানবিকতার সাক্ষী রইল দুর্গাপুর। বৃদ্ধ বাবাকে রাস্তায় ফেলে পালাল ছেলে-বৌমা। স্থানীয় বাসিন্দা ও পুলিসের তৎপরতায় ওই অসুস্থ বৃদ্ধের এখন স্থান হয়েছে হাসপাতালে। সামাজিক অবক্ষয়ের এই ছবি ধরা পড়ল দুর্গাপুরে।

পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুর্গাপুরের অন্ডালের খাস কাজোড়া কোলিয়ারি এলাকার বাসিন্দা মুক্তি আঁকুড়ে। বয়স আনুমানিক সত্তর। এই প্রৌঢ়ের শেষপর্যন্ত ঠাঁই হয় এক প্রাসাদসম আবাসনের নোংরা আবর্জনার স্তুপের সামনে।

- Advertisement -

দুর্গাপুর থানা এলাকার শ্রীনগর পল্লীর এক বহুতল আবাসনের নীচে পড়ে ছিলেন এই বৃদ্ধ। এলাকাবাসীরা পুলিসকে খবর দিলে পুলিস এসে তাকে উদ্ধার করে। ভর্তি করা হয় দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে।

পশ্চিম বর্ধমান জেলার দুর্গাপুরের অন্ডালের খাস কাজোড়া কোলিয়ারি এলাকার বাসিন্দা মুক্তি আঁকুড়ে। বয়স আনুমানিক সত্তর। এই প্রৌঢ়ের শেষপর্যন্ত ঠাঁই হয় এক প্রাসাদসম আবাসনের নোংরা আবর্জনার স্তুপের সামনে।

দুর্গাপুর থানা এলাকার শ্রীনগর পল্লীর এক বহুতল আবাসনের নীচে পড়ে ছিলেন এই বৃদ্ধ। এলাকাবাসীরা পুলিসকে খবর দিলে পুলিস এসে তাকে উদ্ধার করে। ভর্তি করা হয় দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে।

 

কীভাবে ওই জায়গায় এলেন মুক্তিবাবু? পুলিস সূত্রে খবর, সোমবার সকালে ঘুরতে যাওয়ার নাম করে মুক্তিবাবুর গুণধর ছেলে ও বৌমা বাবাকে বহুতল আবাসনের নীচে বসিয়ে দিয়ে চলে যায়। অসুস্থ বাবা ছেলের ফেরার অপেক্ষায় বসে বেশ খানিকটা সময় কাটিয়ে দেন। কিন্তু ছেলে আর ফেরেনি। বৃদ্ধ বাবা বুঝে উঠতে পারেনি অজান্তেই কখন সংসারের বোঝা হয়ে বসে রয়েছেন।

ছেলে তাঁকে নিয়মিত মারধর করত বলে অভিযোগ বাবার। অসুস্থ বাবা ছেলের সেই অত্যাচারও সহ্য করে নিয়েছিলেন মুখ বুজে। কিন্তু তাতেও আর শেষ রক্ষা হয়নি। আবর্জনার স্তুপের সামনে বসে বৃদ্ধ পিতা অপেক্ষায় করছিলেন ছেলের ফিরে আসার । ছেলে ফেরনি।

বাবাকে ফেলে দিয়ে পালিয়েছিল নিজের ঘরে। পাড়া পড়শিরা প্রথমটা বুঝে উঠতে পারেনি বিষয়টি। আবাসনের আসপাশের লোকজন প্রথমে বুঝতে পারেননি। পরে তাঁরা পুলিসে খবর দেন। পুলিস এসে দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করে অসুস্থ এই বৃদ্ধকে। তবে অসুস্থ বৃদ্ধ পিতার বর্ধমান ঠিকানা দুর্গাপুর মহকুমা হাসপাতাল।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!