Saturday, October 16, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরখড়গপুর শহরে স্কুলে ফ্যান চুরি,এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

খড়গপুর শহরে স্কুলে ফ্যান চুরি,এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: কয়েকদিন পরেই পুজো। তারপরেই বিদ্যালয়গুলি খোলার সম্ভাবনা রয়েছে। তার আগেই রেলনগরী খড়গপুর শহরের একটি বিদ্যালয় থেকে ৪৬টি ফ্যান চুরি যাওয়ার ঘটনায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।

তৈরী হয়েছে রহস্য। যদিও ঘটনার তদন্তে নেমে পুলিশ এক যুবককে আটক করে ছয়টি ফ্যান উদ্ধার করেছে। তবে গোটা ঘটনায় রাতের শহরে পুলিশের নজরদারি নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। ঘটনাটি ঘটেছে খড়গপুর পুরসভার আঠারো নম্বর ওয়ার্ডের নিউ সেটেলমেন্ট এলাকায় অন্ধ্র উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে।

- Advertisement -

রেলনগরী খড়গপুর শহরের নিমপুরা রোডের ধারে অবস্থিত প্রায় শতাব্দী প্রাচীন এই বিদ্যালয়ে এতগুলি ফ্যান চুরির ঘটনায় ব্যাপক রহস্য তৈরি হয়েছে। বিদ্যালয়ের একটি গেট কিংবা তালা না ভেঙ্গে ভেতরে ঢুকে শ্রেণীকক্ষগুলি থেকে এইভাবে ফ্যান চুরি যাওয়ায় রীতিমতো বিস্মিত বিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কে তারকেশ্বর রাও দিন কয়েকের ছুটি নিয়ে ছেলের চিকিৎসার জন্য শহরের বাইরে গিয়েছেন।

আর এই স্বল্প সময়ের জন্য বিদ্যালয়ের সিনিয়র শিক্ষক কে সত্যনারায়ণকে দায়িত্ব দিয়ে গিয়েছেন। তিনি জানিয়েছেন শুক্রবার সকালে পড়ুয়াদের মডেল অ্যাক্টিভিটি টাস্কের প্রশ্নপত্র দেওয়া ও পড়ুয়াদের আধার কার্ডের প্রত্যয়িত নকল জমা নেওয়ার জন্য ওয়াই শংকর রাও নামে এক শিক্ষক বিদ্যালয়ে পৌঁছান। তাঁরই নজরে প্রথমে পড়ে এই ফ্যান চুরি যাওয়ার ঘটনাটি।

তিনি জানিয়েছেন দুষ্কৃতীর দল বিদ্যালয়ের গেট কিংবা তালা না ভেঙ্গে কিভাবে ভেতরে ঢুকে একসাথে এতগুলি ফ্যান চুরি করে পালালো সেটি ভেবে কোনও কূলকিনারা করতে পারছি না। সত্যি আমরা বিস্মিত। তবে পুলিশের ধারনা ঘটনাটি বৃহস্পতিবার রাতের নয়। বেশ কয়েকদিন ধরে ফ্যানগুলি চুরি করা হয়েছে। শুক্রবার ঘটনাটি নজরে এসেছে।

এদিকে বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের কাছ থেকে খবর পেয়ে খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। তদন্ত শুরু করে। সেইসময় বিদ্যালয়ের সীমানা পাঁচিল টপকে এক যুবক ঢুকে পড়লে পুলিশ দ্রুত তাঁকে আটক করে। জানা গিয়েছে এই যুবককে জেরা করে আরও দুই জন যুবককে আটক করা হয়।

এদেরকে জেরা করে এইদিন সন্ধ্যা পর্যন্ত পুলিশ ছয়টি চুরি যাওয়া ফ্যান উদ্ধার করে। এই ব্যাপারে পুলিশ জানিয়েছে বিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তিনজনকে আটক করা হয়েছে। ছয়টি ফ্যান উদ্ধার করা হয়েছে।

ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। অপরদিকে আঠারো নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা কোঅর্ডিনেটর পূজা নায়ডু এই ঘটনার জন্য রাতের বেলায় পুলিশের নজরদারিতে গাফিলতি রয়েছে বলে জানিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন বিদ্যালয় পরিচালন কমিটি ফ্যান জোগাড়ের বিষয়ে কি সিদ্ধান্ত নেয় দেখা যাক।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!