সোনার দোকানে ডাকাতি করতে এসে হাতেনাতে পাকড়াও ১ কুখ্যাত ডাকাত,তিন পলাতকের খোঁজে পুলিশ।

খড়গপুর ২৪×৭:-(নারায়ণগড়,পশ্চিম মেদিনীপুর):-সোনার দোকানে ডাকাতি করতে এসে হাতেনাতে পাকড়াও ১ কুখ্যাত ডাকাত,তিন পলাতকের খোঁজে পুলিশ। বড়োসড়ো ডাকাতির ছক ভেস্তে দিল এলাকাবাসী। সোনা দোকানে ডাকাতি করতে এসে ধরা পড়ল বন্দুক সহ আকাশ সরকার নামে ১ কুখ্যাত ডাকাত। পুলিশ জানিয়েছে ধৃতের কাছ থেকে একটি দেশিয় প্রযুক্তিতে তৈরি বন্দুক ও দুটি মোটর বাইক উদ্ধার করা হয়েছে। বন্দুকটি ওয়ান শাটার বলে জানা গেছে। সোমবার রাতে দশগ্রামের একটি সোনা দোকানে দুটি মোটর বাইক নিয়ে ডাকাতি করতে ঢোকে ৪ জন ডাকাত। আচমকাই গাড়ি থেকে নেমে সোনা দোকানের মালিকের মাথায় বন্দুক ঠেকিয়ে। সোনা ও টাকা পয়সা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। আতঙ্কে ওই দোকানের মালিক চিৎকার করলে। স্থানীয় এলাকাবাসী ছুটে এলে বাইক নিয়ে চম্পট দেয় চার ডাকাত। স্থানীয় এলাকাবাসীর সহযোগিতায় নারায়ণগড় থানার বেকারচক বাজার এলাকায় স্থানীয়রা চারজনকে ঘেরাও করে। তাদের মধ্যে আকাশ সরকার নামে একজনকে ধরে পারলেও। বাকি তিনজন পলাতক।জনগণের রোষের মুখে ধৃত আকাশ সরকার নামে ওই ডাকতকে বিক্ষুব্ধ জনতা মারধর করে পুলিশের হাতে তুলে দেয় । ঘটনার খবর পেয়ে নারায়ণগড় থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে ধৃতের কাছ থেকে একটি ওয়ান শাটার বন্দুক উদ্ধার করে নারায়ণগড় থানার পুলিশ। দুটি মোটর বাইক ছেড়ে পালিয়ে যায়। বাকি তিন জন সেই দুটি বাইক উদ্ধার করে পুলিশ। বাকিদের খোঁজে তল্লাসি চালাচ্ছে নারায়ণগড় থানার পুলিশ। সৈকত রানা নামে সোনা দোকানের মালিক তিনি জানান গতকাল রাত প্রায় ৮ নাগাদ দোকানে আচমকাই চারজন ডাকাত মোটর বাইক থেকে নেমে। প্রথমে বন্দুক বাড়ি মাথায় মারে। সোনা ও টাকাপয়সা ছিনিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করে। আতঙ্কে চিৎকার করলে স্থানীয় এলাকাবাসীদের ডাকলে চম্পট দেয় চার ডাকত। তারপরই বন্ধু-বান্ধবদের সূত্রে পার্শ্ববর্তী এলাকায় ফোন করলে নারায়ণগড় থানার বেকারচক এলাকায় একজনকে ধরে ফেলে স্থানীয়রা। ঘটনার পর থেকে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন সোনা দোকানের মালিক। এই ঘটনায় নারায়ণগড় থানা অভিযোগ দায়ের করেছেন ওই দোকানের মালিক।