Saturday, January 29, 2022
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরখড়গপুর হাসপাতাল থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ রোগী! তারপর ?
Advertisement

খড়গপুর হাসপাতাল থেকে রহস্যজনকভাবে নিখোঁজ রোগী! তারপর ?

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: হাসপাতাল থেকে এক রোগী রহস্যজনকভাবে উধাও হয়ে যাওয়াকে কেন্দ্র করে ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে।  অভিযোগ উঠেছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার। প্রশ্ন উঠেছে নজরদারি নিয়ে। পাশাপাশি বিষয়টি নিয়ে জানতে গিয়ে উধাও হয়ে যাওয়া রোগীর পরিবারের সদস্যদের দুর্ব্যবহারের শিকার হতে হয়েছে।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

এমনকি সন্ধ্যাবেলায় ফের হাসপাতালে গিয়ে উধাও রোগীর খোঁজ না পেয়ে তাঁর স্ত্রী অসুস্থ হয়ে পড়েন। বর্তমানে মহিলা হাসপাতালে ভর্তি। সবমিলিয়ে শনিবার সকাল থেকে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে যাওয়া রোগীর সন্ধানে পরিবারের সদস্যরা খড়গপুর শহরের এক প্রান্ত থেকে অপর প্রান্তে ছুটে বেরালেন।

পরে খড়গপুর টাউন থানায় বিকালে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন নিখোঁজ রোগীর স্ত্রী কাকলি দন্ডপাট। এই ব্যাপারে পুলিশ জানিয়েছে অভিযোগ দায়ের হয়েছে। নিখোঁজ রোগীর সন্ধান পাওয়ার চেষ্টা করা হচ্ছে। আর খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালের সুপার কৃষ্ণেন্দু মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন এইভাবে রোগী মাঝেমধ্যেই উধাও হয়ে যায়। এইদিন রোগী উধাওয়ের বিষয়ে খড়গপুর টাউন থানায় জানানো হয়েছে।

পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন বিষয়টি নিয়ে খোঁজখবর করা হচ্ছে। তবে হাসপাতালে নিরাপত্তা রক্ষীর পরিমাণ কম থাকায় এইধরনের ঘটনা মাঝেমধ্যে ঘটছে বলে তিনি জানালেন। বৃহস্পতিবার বিকালে জ্বর ও অন্যান্য উপসর্গ নিয়ে নারায়ণগড় থানার নারমা গ্ৰামের দিলীপ দন্ডপাটকে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি হাসপাতালের পুরুষ মেডিকেল ওয়ার্ডে ভর্তি ছিলেন। পরিবারের অভিযোগ শনিবার সকাল থেকে তাঁকে আর পাওয়া যাচ্ছে না।

এই ব্যাপারে এই রোগীর ছেলে সঞ্জয় দন্ডপাট জানিয়েছেন এইদিন সকালে দিদিমনি একটি ইনজেকশন দেন। তারপর তিনি বাইরে অপেক্ষমাণ মাকে ডাকতে যান। তারপর টিফিন করে হাসপাতালে যাওয়ার পর বাবাকে আর দেখতে পাওয়া যায় নি। তিনি বলেন ” দিদিমনির কাছে জানতে চাইলে ওঁরা বলেন বাবা চলে গিয়েছেন। অথচ কোনও সই করানো হয় নি।” তাঁর প্রশ্ন এটি কিভাবে সম্ভব।

আর উধাও হয়ে যাওয়া রোগীর স্ত্রী কাকলি দন্ডপাট বলেছেন ” শুক্রবার উনি ভালই ছিলেন। এইদিন সকালে একটি ইনজেকশন দেওয়ার পর তিনি আনমনা হয়ে যান। তারপর থেকে আর তাঁকে পাওয়া যাচ্ছে না।”

পাশাপাশি তাঁর অভিযোগ ওয়ার্ডে নার্সরা তাঁকে সই করে কাগজপত্র না নিয়ে গেলে পুলিশে দেওয়ার হুমকি দেন। এদিকে বিকালে খড়গপুর টাউন থানায় অভিযোগ দায়ের করার পর সন্ধ্যায় ফের হাসপাতালে যান স্বামীর খোঁজে। কিন্তু না পেয়ে সেখানে অসুস্থ হয়ে পড়েন। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!