Wednesday, October 5, 2022
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরKeshiyari: ছোট বউকে ধমকাতে শূন্যে গুলি বৃদ্ধর,বাজেয়াপ্ত করা হল বন্ধক
Advertisement

Keshiyari: ছোট বউকে ধমকাতে শূন্যে গুলি বৃদ্ধর,বাজেয়াপ্ত করা হল বন্ধক

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: কী দাপট! ১০০ ছুঁতে বছর দশেক বাকি তঁার। তিনি কেউকেটা কেউ নন। তবু তঁার গ্রাম তো বটেই প্রতিবেশী গঁা তাঁকে জানে। হবে নাই বা কেন? এই কেশিয়াড়ির খাজরা পঞ্চায়েতের মাহালা পাড়ায় এখনও একমাত্র তঁার বাড়িতেই রয়েছে লাইসেন্সপ্রাপ্ত দু’নলা বন্দুক। তাই পাশের নায়েক ও মহাপাত্র পাড়াও বঙ্কিম মাহালাকে খানিক সমীহও করে।

- Advertisement -
- Advertisement -

কিন্তু সেই বঙ্কিমবাবু বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় যে খেল দেখালেন তাতে একেবারে থরহরিকম্প অবস্থা হল গোটা গ্রামের। বাড়ি থেকে সবাইকে বের করে দিয়ে দরজা বন্ধ করে জানালার পাশে বসলেন বন্দুক কঁাধে নিয়ে। লক্ষ্য ছোট বউ। হুঙ্কার, ‘‘তোরা সবাই মিলে আমার সব সম্পত্তি ধ্বংস করে দিলি। কাউকে ছাড়ব না।” বলেই চালালেন গুলি। তবে কাউকে লক্ষ্য করে নয়। ফঁাকা মাঠের দিকে।

৯০ এর ‘যুবক’ বঙ্কিমবাবুকে নিরস্ত্র করতে আসতে হল কেশিয়াড়ি থানার ভ্যান ভর্তি পুলিশকে। বয়স হয়েছে, মানসিক ভারসাম্যও খানিক হারিয়েছেন, মাথা গরম হলে কখন কী করে ফেলবেন, এই ভয়ে তঁার হাত থেকে কেড়ে নেওয়া হল বন্দুক। বাজেয়াপ্ত করা হল সেটি। হঁাফ ছেড়ে বঁাচল কেশিয়াড়ির নিদাতা গ্রামের তিন পাড়া।

এক স্ত্রী মারা গেলেও দুই স্ত্রীকে নিয়ে দিবি্য দাপটেই জীবন কাটিয়েছেন ছিপছিপে বঙ্কিম মাহালা। এখন বয়স ৯০ হলেও, কিছুদিন আগে পর্যন্ত নিজে বাইক চালিয়ে সংসারের বাজার হাট থেকে সব কাজই করতেন। নিঃসন্তান বঙ্কিমবাবু খুড়তুতো ভাইয়ের ছেলেকে নিজের ছেলে হিসাবে বড় করেছেন। এ পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। পড়শিরা বলেন, বঙ্কিমবাবু চীরকালই কিপটে। হাত থেকে জল গলে না। হলও তাই। সপ্তাহখানেক আগে পাতে মাছের দু’টুকরো দেখেই তেলেবেগুনে চটে ওঠেন। তঁার ধারণা হয়, বয়স হয়ে যাওয়ায় তঁার চোখের আড়ালে পালিত ছেলে দু’হাতে খরচ করছে।

মাঝে মধে্য তা নিয়ে কথা কাটাকাটিও হয়। বঙ্কিমবাবুর বক্তব্য, এক টুকরো মাছেই যেখানে ভাত খাওয়া যায়, সেখানে দু’টুকরো কেন? এভাবে সব সম্পত্তি শেষ করে দিচ্ছে পালিত ছেলে। বঙ্কিমবাবুর ছোট স্ত্রী পালিত ছেলের পক্ষে কথা বলাতে আর মাথার ঠিক রাখতে পারেননি তিনি। সবাইকে বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে ভেতর থেকে শিকল তুলে দিয়ে তঁার হুঙ্কার, “আমার বাড়ি আমি একাই সামলাব। কাউকে সম্পত্তি নষ্ট করতে দেব না।” দেওয়ালে ঝোলানো বন্দুক নিয়ে জানালার ধারে বসেন বাড়ি পাহারা দিতে।

আর শূনে্য চালান গুলি।  তবে পুলিশ জানিয়েছে এই বৃদ্ধ বন্দুক নিয়ে সকলকে ভয় দেখালেও কোনও গুলি ছোঁড়েননি। ঘটনার পর বৃদ্ধের লাইসেন্সড বন্দুকটি বাজেয়াপ্ত করে নিজেদের হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ। জেলাশাসকের কাছে ঘটনার একটি রিপোর্টও পাঠানো হয়েছে। তবে ঘটনায় কাউকে গ্রেফতার কিংবা কোনও মামলা দায়ের করা হয়নি। আর বঙ্কিমবাবু নাকি সাধের বন্দুক হারিয়ে মনমরা হয়ে নাওয়া খাওয়া ছেড়েছেন।

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!