Thursday, September 23, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুর৩০০ বুথে জিতে তিন লক্ষ ব্যবধান, সব অফিসের বাইরে জেহাদিদের বসিয়ে রেখেছিল:...

৩০০ বুথে জিতে তিন লক্ষ ব্যবধান, সব অফিসের বাইরে জেহাদিদের বসিয়ে রেখেছিল: শুভেন্দু।

- Advertisement -

 

নিজস্ব সংবাদদাতা,দাঁতন: ‘১১ সালের পর তৃণমূল করতে এসেছে। ডায়মন্ড হারবারে সভা করে বলছে, নাড্ডাজির সভায় কম লোক এসেছে!’  পশ্চিম মেদিনীপুরের দাঁতনের সভা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে পাল্টা আক্রমণ করলেন শুভেন্দু অধিকারী। তৃণমূলের বিরুদ্ধে তাঁর বিস্ফোরক অভিযোগ, ‘প্রধানমন্ত্রীর বাড়ি। লিখছে বাংলার আবাস যোজনা। ভিতরে ছিলাম, দেখে ঘেন্না হয়ে গিয়েছে। কীভাবে কেন্দ্রীয় প্রকল্পগুলির নাম পরিবর্তন করেছে।’হাইভোল্টেড রবিবার। একদিনে ডায়মন্ডহারবারে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় অন্যদিকে দাঁতনে শুভেন্দু অধিকারী। রাজনীতির ময়দানে মেগা লড়াই। কেউ কাউকেই জমি ছাড়লেন না এতটুকু। এদিন প্রথমে ডায়মন্ড হারবারের জনসভায় বক্তব্য রাখেন অভিষেক। শুভেন্দুর নাম না করে তিনি বলেন, ‘বাংলার মানসম্মান নষ্ট করে বাংলাকে মোদীর হাতে তুলে দেওয়ার কথা বলা হচ্ছে। বাংলা কি কোনও বস্তু নাকি যে যার তার হাতে তুলে দিতে হবে! ক্ষমতা থাকলে ডায়মন্ডহারবারের ৭ বিধনসভার মধ্যে একটা মোদীর হাতে তুলে দিয়ে দেখাও। আগামিদিনে দক্ষিণ ২৪ পরগনায় ৩১-০ করব।’ জবাব দেন জেপি নাড্ডার কনভয়ে হামলা থেকে ‘তোলাবাজ ভাইপো’ অভিযোগেরও।এদিন শুভেন্দু অধিকারী যখন দাঁতনে সভাস্থলে পৌঁছন, ততক্ষণে ডায়মন্ড হারবারের সভা শেষ হয়ে গিয়েছে। নাম না করে অভিষেককে শুভেন্দু পাল্টা, ‘ (ডায়মন্ড হারবারে)১৬০০ বুথের মধ্যে ৩০০ বুথে জিতে তিন লক্ষ ব্যবধান হয়েছে। মনোনয়ন জমা দিতে পারেনি কেউ। সব অফিসের বাইরে জেহাদিদের বসিয়ে রেখেছিল। তৃণমূলের এখন সাংসদ বলছেন, মেদিনীপুরে বিশ্বাসঘাতকের জন্ম হয়। আমি বলছি মেদিনীপুরে বর্ণপরিচয়ের জন্ম।

- Advertisement -

মেদিনীপুরে ক্ষুদিরামের জন্ম হয়েছিল। মেদিনীপুরে মাতঙ্গিনী হাজরার জন্ম হয়। তাম্রলিপ্ত সরকার হয়েছিল মেদিনীপুরে।’ তৃণমূলকে কটাক্ষ, ‘এখানে দেড়জনের সরকার চলছে। একজনেরই পোস্ট, বাকি সব ল্যাম্পপোস্ট। মন্ত্রিসভা দক্ষিণ কলকাতার কয়েকজনের কুক্ষিগত। আমরা কী বানের জলে ভেসে এসেছি? এ লড়াই গ্রামের লড়াই, এ লড়াই জেলার লড়াই।’ উল্লেখ্য, বিজেপিকে (BJP) যোগ দেওয়ার পরে প্রতিটি জমসভায় বাংলা-কে মোদীর হাতে তুলে দেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন শুভেন্দু। ব্যতিক্রম হল না এদিনও। সদ্য বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা বলেন, মোদীজির হাতে তুলে দিতে না পারলে, রাজ্য বাঁচবে না। বাংলা ও দিল্লিতে একই দলের সরকার চাই। সঙ্গে হুঁশিয়ারি,  ‘কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে ভোট হবে। আমাকে ভয় দেখাবে না’। আগামীকাল দিল্লিতে পাল্টা সভা করবে তৃণমূলও।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!