Thursday, December 2, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরএক্সক্লুসিভ: খড়গপুরে বিদায়ী কাউন্সিলরের তৎপরতায়! ন'দিন পর বৃদ্ধা মাকে খুঁজে পেল পরিবার
Advertisement

এক্সক্লুসিভ: খড়গপুরে বিদায়ী কাউন্সিলরের তৎপরতায়! ন’দিন পর বৃদ্ধা মাকে খুঁজে পেল পরিবার

Advertisement

Advertisement

এক্সক্লুসিভ,খড়গপুর ২৪×৭: হারিয়ে যাওয়া মাকে ফিরে পেল ছেলে খড়গপুর পুরসভার ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলরের তৎপরতায়। শুক্রবার দুপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে হারিয়ে যাওয়া মাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে ছেলে সনৎ দাসের কাছে। মাকে ফিরে পেয়ে বেজায় খুশি ছেলে সনৎ দাস। তিনি এরজন্য খড়গপুর পুরসভার বিদায়ী কাউন্সিলরের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন। আর এই কাজটি করতে পেরে ভালো লাগার কথা বললেন খড়গপুর পুরসভার ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর অন্যতম সদস্য তুষার চৌধুরী। তিনি জানালেন বৃহস্পতিবার রাত দশটা নাগাদ তাঁর নজরে পড়ে এক বৃদ্ধা বাড়ির সামনে বিক্ষিপ্তভাবে ঘোরাঘুরি করছেন। তখন তিনি বৃদ্ধাকে বাড়িতে ডেকে এনে বসান। তারপর রাতের খাবার খাওয়ানোর ফাঁকে বৃদ্ধার নাম ও ঠিকানা জেনে নেন। তারপরেই তিনি ফোন করেন খড়গপুর টাউন থানার পুরাতন বাজার ফাঁড়িতে। সেখান থেকে পুলিশ আসে। বৃদ্ধার দেওয়া তথ্য অনুযায়ী হাওড়া জেলার চেঙ্গাইল থানায় পুলিশ যোগাযোগ করে। তারপরে বৃহস্পতিবার দুপুরে চেঙ্গাইল থানা থেকে খবর পেয়ে বৃদ্ধার একমাত্র ছেলে, নাত জামাই ও এক প্রতিবেশি খড়গপুরে সাঁজোয়াল এলাকায় বিদায়ী কাউন্সিলরের বাড়িতে পৌঁছান। তারপরে দুপুরে পুলিশের উপস্থিতিতে বৃদ্ধাকে ছেলের হাতে তুলে দেওয়া হয়। এই ব্যাপারে হাওড়া জেলার চেঙ্গাইল থানার খঞ্জিলা বাজার এলাকার বাসিন্দা চটকল শ্রমিক সনৎ দাস জানিয়েছেন তাঁর মা গত এক বছর ধরে মানসিক ভারসাম্যহীন। বাড়িতে ফেরার পর বৃদ্ধা ছেলে ও বৌমাকে চিনতে পারলেও নাতনিদের চিনতে পারছেন না। তিনি জানিয়েছেন প্রায় নয় দিন ধরে মা নিখোঁজ ছিলেন। তিনি বলেছেন ” মাকে ফিরে পেয়ে খুব ভালো লাগছে। এরজন্য ওই কাউন্সিলরকে অসংখ্য ধন্যবাদ জানাই। তিনি না থাকলে মাকে হয়ত আর ফিরেই পেতাম না।” আর খড়গপুর পুরসভার প্রশাসক মন্ডলীর অন্যতম সদস্য তথা ২৪ নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর তুষার চৌধুরী বলেছেন ” বৃদ্ধাকে দেখে খুব খারাপ লেগেছিল। তাই ওনাকে ডেকে বাড়িতে রাতে রেখে দিয়ে ফিরিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলাম। কাজটি করতে পেরে ভালো লাগছে।”

Advertisement
- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!