Thursday, December 2, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরনতুন সরকার তিন মাসের মধ্যেই জনগনের অধিকার ফিরিয়ে দেবে! ডেবরার রাধামোহনপুরে বামফ্রন্টের...
Advertisement

নতুন সরকার তিন মাসের মধ্যেই জনগনের অধিকার ফিরিয়ে দেবে! ডেবরার রাধামোহনপুরে বামফ্রন্টের সমাবেশে বললেন, বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী

Advertisement

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা,ডেবরা: নতুন সরকার তিন মাসের মধ্যেই জনগনের অধিকার ফিরিয়ে দেবে। যারা এতদিন প্রচার করতো দূরবীন দিয়ে লাল ঝান্ডা দেখা যাচ্ছেনা,এখন তারাই বলতে শুরু করেছে ত্রিশঙ্কু হবে। আর বাংলার জনগন দুই ফুলকে ঐসব ত্রি ত্রি নয় একটাই শঙ্কুতে ডুবিয়ে দেবে। বাম কংগ্রেস গনতান্ত্রিক ধর্মনিরপেক্ষ সরকার গঠনের শপথ নিয়েছে বাংলার মানুষ। এর মধ্যদিয়েই বাংলায় একটা কাটমানিখোর তোলাবাজ দূর্নীতিবাজ সরকারের অপসারন হবে। এমন বক্তব্য তুলে ধরলেন সিপিআইএম কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা ও রাজ্য বাম পরিষদীয় দলনেতা সুজন চক্রবর্তী।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

ডেবরা ব্লকের রাধামোহনপুর স্টেশন সংলগ্ন ময়দানে এক সমাবেশ হয় বৃহস্পতিবার। সেই সমাবেশে সুজন চক্রবর্তী সহ পার্টির জেলা সম্পাদক তরুন রায় এবং পার্টিনেতা সুভাষ দে, প্রানকৃষ্ণ মন্ডল, জাহাঙ্গীর করিম প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। সমাবেশের আগে হাতিবেড়িয়া মৌজা থেকে এক বিরাট মিছিল শুরু হয়ে সমাবেশ স্থলে আসে। চার কিমি পথ জুড়ে ব্রিগেড সমাবেশ সফল করার আহ্বান জানিয়ে এই মিছিল হয়। কৃষক ক্ষেতমজুর সহ সাধারন মানুষের ঢল নামে। কেবলমাত্র রাধামোহন এরিয়া কমিটির এলাকার মানুষ এই কর্মসূচিতে সামিল হোন।
সমাবেশে সুজন চক্রবর্তী একের পর দুই সরকারের মানুষ মারা পদক্ষেপ, কৃষকের বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষনার নীতি,শ্রমজীবী মানুষের অধিকার কেড়ে নেওয়ার দাসত্বের ব্যাবস্থাপনা ফিরিয়ে এনে কর্পোরেট দের আচ্ছা দিনের চৌকিদারী করার তীব্র সমালোচনা করেন।

তিনি বলেন বাংলায় নবান্ন থেকেই কাটমানিখোর তোলাবাজদের লালন পালন করা হয়। বাংলার সাধারণ মানুষের জন্য উন্নয়নের পরিবর্তে তৃণমূলের পরিবারের সম্পদ বেড়েছে। বাংলার জনসাধারণকে নয় এখন মুখ্যমন্ত্রী তার পরিবারের পাচার জালিয়াতিতে যুক্তদের নিরাপত্তা দিতে ব্যাস্ত। লুঠের সম্পত্তি দেশ বিদেশে মজুদ করে রাখার অভিযোগ যে মিথ্যা নয় তাও তিনি বলেন।
তিনি বলেন সারদা রোজভ্যালি এমন চিটফান্ডে সর্বশান্ত হওয়াদের টাকা ফেরত করাবে নতুন সরকার। চোরেদের লুঠের সম্পদ সব বাজেয়াপ্ত করে সেই কাজ করা হবে।
তিনি বলেন বাম সরকারই দূয়ারে সরকার ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত ব্যাবস্থার মাধ্যমে জনগনের হাতে উন্নয়নের পরিকল্পনা সহ ক্ষমতা তুলে দিয়ে ছিলো। এখন পঞ্চায়েতে লুঠেরা বাহিনী দখল করেছে। নতুন সরকার তিন মাসের মধ্যেই পঞ্চায়েত পৌরসভা সব ভেঙে দিয়ে জনগনের পঞ্চায়েত নির্বাচনের মধ্যদিয়ে অধিকার ফিরে দেবে। চোর ডাকাতের দলবদল নয়, দিন বদলের শপথ নিয়ে লড়াই শুরু হয়েছে রাজ্যের সর্বত্র। নতুন সরকার এক বছরের মধ্যে সমস্ত শূন্যপদে পূরনে বেকারদের চাকরি দেবে। প্রতিবছর এসএস সি, টেট, পিএসি পরীক্ষার মাধ্যমে নিয়োগ চালু হবে। বাম কংগ্রেস ধর্মনিরপেক্ষ সরকার গঠনের দামামা বেজে উঠেছে। ২৮ তারিখ ব্রিগেড সমাবেশ থেকেই বাংলা সাজবে নতুন সাজে দুই ফুল কে বাংলা থেকে তাড়াতে।
বাংলার এমন এক মুখ্যমন্ত্রী আমাদের দূর্ভাগ্য যার পরিবারে সিবিআই হানা দেয় দূর্নীতি কাটমানি আর পাচারে যুক্ত থাকার কারনে। এবাংলা কে বাঁচাতে, বাংলার ঐতিহ্য কে রক্ষা করতে হবেই আমাদের যেকোনো মূল্যে। এখানে নবান্ন যেভাবে ছাত্র যুব শিক্ষক সহ সাধারন মানুষকে লাঠি পেটা করে তাদের দাবী আদায়ের লড়াইকে দমন করতে, তেমনি ছাপান্ন ওয়ালার দলও সেই একই কায়দায় সারাদেশ সহ বিজেপি সরকারের রাজ্য গুলোতে প্রতিবাদীদের উপর আক্রমন চালায়। তাই বিকল্প এখন একটাই বাম গনতান্ত্রিক ধর্মনিরপেক্ষ সরকার যাহা এখন বাংলার মানুষের মুখে মুখে।
তরুন রায় বলেন ডেবরা ব্লকের বামপন্থী আন্দোলনের ঐতিহ্য পুনরুদ্ধার সংগ্রাম গত একমাসে এমন চারপ্রান্তে চারটি সমাবেশ। মানুষ ঘুরে আসছেন। আমাদের দায়িত্ব তাকে সংগঠিত করা। জেলা থেকে আফ লক্ষাধিক মানুষ ব্রিগপড যাবেন ইতিমধ্যে সেই ব্যাবস্থাপনা হয়েছে। ব্রিগেডে যত বেশী কর্মী কে নিয়ে যাবেন তারা উত্তাপ নিয়ে এসে এলাকায় দূর্গ করার কাজে দায়িত্ব পালনে যোগ্য হয়ে উঠবেন। সেই লক্ষ নিয়ে সামিল হওয়ার ও করার আহ্বান জানান। সভায় সভাপতিত্ব করেন পার্টি নেতা রবীন দত্ত।

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!