Sunday, December 5, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরনন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাবো, খড়গপুরের সভা থেকে চ্যালেঞ্জ শুভেন্দুর
Advertisement

নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাবো, খড়গপুরের সভা থেকে চ্যালেঞ্জ শুভেন্দুর

Advertisement

Advertisement

খড়গপুর ২৪×৭: ফের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে নন্দীগ্রামে হারানোর চ্যালেঞ্জ জানালেন বিজেপির নেতা শুভেন্দু অধিকারী। পাশাপাশি নবান্নে তেজস্বী যাদবের সাথে বৈঠকের জন্য নির্বাচন বিধি ভঙ্গের অভিযোগ তুললেন। নির্বাচন কমিশনের উপর বেশি ভরসা না করে বুথগুলিকে দুর্ভেদ্যু দুর্গে পরিণত করার পরামর্শ দিয়েছেন। আর নাম করে রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রকে কটাক্ষ করলেন। বুধবার বিকালে পিংলা বিধানসভার খড়গপুর দুই নম্বর ব্লকের চকগোপিনাথপুরে বিজেপির একটি যোগদান মেলা সভায় শুভেন্দু অধিকারী বলেন ” আমি নন্দীগ্রামে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে হারাব। আমাকে দল প্রার্থী করলে সরাসরি হারাব।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

আর অন্য কাউকে প্রার্থী করলে পদ্মফুল ফোটাব। দায়িত্ব নিলাম।” পাশাপাশি বুথগুলিকে দুর্ভেদ্যু দুর্গে পরিণত করার পরামর্শ দিয়ে বলেন ” বুথগুলিকে দুর্ভেদ্যু দুর্গ করুন। শুধুমাত্র নির্বাচন কমিশনের উপর ভরসা করলে হবে না। কারন এখনও দেখছেন না। কি কান্ড দেখুন। নবান্নতে নির্বাচন ঘোষণা হয়ে যাওয়ার পরেও তেজস্বী যাদবকে নিয়ে মিটিং হচ্ছে।” তারপরেই তিনি ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন ” নরেন্দ্র মোদী বহিরাগত। অমিত শাহ বহিরাগত। আর তেজস্বী যাদব ঘরের জামাই।” তিনি অভিযোগ করে বলেন গোটা বাংলাকে দেউলিয়া করে দিয়েছে এই রাজ্য সরকার। গোটা রাজ্যে কোথাও কোনও চাকরি নেই। পাশাপাশি গোটা রাজ্য দুর্নীতিতে ছেয়ে গিয়েছে বলে তিনি বলেন। এদিকে রীতিমতো নাম উচ্চারণ করে রাজ্যের মন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্রকে এক হাত নিয়েছেন শুভেন্দু। তিনি বলেন পিংলায় অদ্ভুত ব্যাপার চলছে। সৌমেন মহাপাত্র তমলুকে পালিয়ে গিয়েছেন। সৌমেন মহাপাত্র এক জায়গায় দুবার দাঁড়ান না বলে উল্লেখ করে অতীতের নজীর তুলে ধরেন। এমনকি এইদিন শুভেন্দু অধিকারীর আক্রমণ থেকে ছাড় পান নি তৃণমূলের জেলা সভাপতি অজিত মাইতি। পাশাপাশি বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় আসলে জমি বাড়ি বাজেয়াপ্ত করে চিটফান্ডের টাকা ফেরতের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন তিনি। এইদিনের সভায় খড়গপুর দুই নম্বর ব্লকের তৃণমূলের সাধারণ সম্পাদক সুশান্ত পাল সহ বহু নেতা ও কর্মী বিজেপিতে যোগ দিলেন। এদিকে বিজেপিতে যোগ দেওয়ার পর তৃণমূল করার জন্য উপস্থিত মানুষের কাছে ক্ষমা চেয়ে মঞ্চে কান ধরে উঠবস করলেন সুশান্ত পাল। এছাড়া যোগ দেন ডেবরা পঞ্চায়েত সমিতির স্বাস্থ্য কর্মাধ্যক্ষ রতন দে সহ ডেবরা থানার বেশ কয়েকটি অঞ্চলের তৃণমূল নেতা ও কর্মীরা। সভায় উপস্থিত ছিলেন বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার সভাপতি অন্তরা ভট্টাচার্য, রাজ্য সম্পাদক তুষার মুখোপাধ্যায়, অমূল্য মাইতি সহ অনেকে।

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!