শ্বাসনালীতে খাবার আটকে মৃত্যু সবংয়ের সিভিক পুলিশের,এলাকায় শোকের ছায়া

খড়গপুর ২৪×৭,সবং: রাত পোহালেই ছেলের জন্মদিন, সেই উপলক্ষে বাড়িতে আয়োজন করা হয়েছে অনুষ্ঠান। উপস্থিত আত্মীয়-স্বজন আনন্দের বন্যা বাড়িতে। চলছে জোরকদমে রান্না খাওয়া দাওয়ার আয়োজন। রান্না শেষ অন্য দিনের মতোই ছেলেকে পাশে বসিয়ে ভাত খাওয়াচ্ছিলেন বাবা। তারই মধ্যে ঘটেগেল মর্মান্তিক ঘটনা।

ভাত খাওয়ার সময় শ্বাসনালীতে খাওয়ার আটকে মৃত্যু হল এক সিভিক পুলিশ কর্মীর। মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলা সবং ব্লকের ৯ নম্বর বলপাই অঞ্চলের সিঁদুরদা গ্রামে। মৃত সিভিক পুলিশ কর্মী শ্রীকান্ত দাস (৩০)। সবং থানায় কর্মরত সিভিক ছিলেন বলে জানা গেছে। পুলিস ইতিমধ্যে মৃতদেহ উদ্ধার করে। ময়নাতদন্তের জন্য খড়গপুর মহকুমা হসপিটালে পাঠিয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মৃত শ্রীকান্ত দাস নামে ওই সিভিক পুলিশ কর্মীর ছেলের জন্মদিন ছিলো আগামীকাল। সেইমতো আজ থেকে বাড়িতে হাজির আত্মীয় স্বজন থেকে বন্ধুবান্ধবরা। জোরকদমে চলছিলো ছেলের জন্মদিনের আয়োজন। তারই মধ্যে ঘটেগেল মর্মান্তিক ঘটনা।

জানা যায়,প্রতিদিনের মতো আজও নিজের একমাত্র ছেলে পাশে বসিয়ে ভাত খাচ্ছিলেন ওই সিভিক কর্মী। ভাত খাওয়ার সময় শ্বাসনালীতে আটকে যায় খাওয়ার। তৎক্ষণাৎ দম আটকে ছটফট করতে শুরু করে সে।পরিজনেরা বুঝতে পারেন তার শ্বাসনালীতে খাবার আটকে গিয়েছে। তৎক্ষণাৎ মুখে জল দিয়ে খাবার বার করার আপ্রাণ চেষ্টা শুরু করেন তাঁরা। আপ্রাণ চেষ্টা করেও বাঁচানো যায়নি তাঁকে। দম আটকে তৎক্ষণাৎ মৃত্যু হয় তার।

অবশেষে সবং গ্রামীন হসপিটালে নিয়ে গেলে চিকিৎসারা তাঁকে মৃত বলে ঘোষণা করেন। অন্যদিকে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানতে সবং থানার পুলিশ মৃতদেহটিকে খড়গপুর মহকুমা হসপিটালে ময়নাতদন্তের জন্য পাঠিয়েছে। এদিকে বাড়ির একমাত্র সন্তানকে হারিয়ে দিশাহারা বাবা-মা স্ত্রী সহ গোটা পরিবার।