EXCLUSIVE: সবংয়ে ভোট-পরবর্তী হিংসা,তৃণমূল কর্মীকে মারধরের ঘটনায়! গ্রেফতার এক বিজেপি কর্মী

খড়গপুর ২৪×৭,সবং: দ্বিতীয় দফা ভোট গ্রহণের পর উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার সবং। এবার তৃণমূল কর্মীকে মারধরের ঘটনায় এক বিজেপি কর্মীকে গ্রেপ্তার করলো সবং থানার পুলিশ।
প্রসঙ্গত, গত রবিবার সবং থানার ১৩ নম্বর বিষ্ণুপুর অঞ্চলের জগন্নাথ চক এলাকায় এক তৃণমূল কর্মী বেধড়ক মারধরের অভিযোগ উঠেছিল বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে।

জানা যায়,সন্ন্যাসী বর্মন নামে ওই তৃণমূল কর্মী রেশন দোকান থেকে রেশন সামগ্রী নিয়ে বাড়ি ফিরছিলেন। সেই সময় বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীদের পথ আটকে কাঠের বাটাম ও লাঠি দিয়ে বেধড়ক মারধর করে। ঘটনায় গুরুতর আহত হয় ওই তৃণমূল কর্মী। আহত ওই তৃণমূল কর্মীদের রক্তাক্ত অবস্থায় সবং গ্রামীণ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। ঘটনার পর থেকে সবং বিধানসভা কেন্দ্রে তৃণমূল প্রার্থী মানস ভুঁইয়া দোষীদের গ্রেফতারের দাবিতে সোচ্চার হোন। তিনি জেলা উচ্চ পুলিশ আধিকারিকদের কাছে অভিযোগ করেন। অভিযোগ পাওয়ার পরে, চন্দন হাজরা নামে। এক বিজেপি কর্মীকে গ্রেফতার করল সবং থানার পুলিশ।

ধৃত ওই বিজেপি কর্মীকে আজ মেদিনীপুরে আদালতে তোলা হয়েছে বলে জানা গেছে পুলিশ সূত্রে। এ ব্যাপারে সবং ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অমল পান্ডা বলেন, বিজেপির নাম করছে ওরা। ওদের কাজকর্ম দেখে মনে হচ্ছে ওরা” কোন রাজনৈতিক দলের কর্মী হতে পারে বলে আমার বিশ্বাস হয় না এবং আমাদের তৃণমূল কর্মীদের উপর সন্ত্রাস চলছে এটা অস্বীকার করা যাবে না। এটা একটা রাজনৈতিক দল প্যানিক তৈরি করছে।

এটা সব জায়গায় হচ্ছে,ইলেকশন পারপাসে। যদি এই ঘটনায় কোনো রাজনৈতিক দলের মদত থাকে। তাহলে নেতাদেরকে বলবো, তাদের কর্মীকে যেন সংযত করে। এর পাশাপাশি তিনি পুলিশ প্রশাসনের কাছে প্রটেকশন এর দাবি জানিয়েছে।

অন্যদিকে সব অভিযোগ অস্বীকার করে, সবং ব্লক বিজেপি নেতা অজিত দত্ত গুপ্ত বলেন। এই সব অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন,সবংয়ে বিজেপি-গোটা পশ্চিমবাংলায় বিজেপি সুশৃংখল পার্টি। এখানে কোনো সন্ত্রাস নেই। আমরা জয়ী হচ্ছি,তাই মিথ্যা মামলা দিয়ে ফাঁসানোর চেষ্টা করছে পুলিশকে দলদাসে ব্যাবহার করে। ঘটনায় একে অপরের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল ও বিজেপি দুই শিবির।