করোনা বিধি মেনে খড়গপুরে তেলুগু নববর্ষের অনুষ্ঠান

খড়গপুর ২৪×৭:  করোনা সংক্রমণ ক্রমশই বাড়ছে খড়গপুর শহরে। গত ২৪ ঘন্টায় গোটা শহরে মোট ২১ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তারমধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য সংখ্যায় রয়েছেন খড়গপুর আইআইটি চত্বরের বাসিন্দা।

খড়গপুর আইআইটি চত্বরের আট জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। তারপরেই রয়েছে রেলকর্মীরা। শহরের রেল এলাকা সহ বিভিন্ন প্রান্তে বসবাসকারী মোট পাঁচ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়া শহরের প্রেমবাজার এলাকায় দুইজন করোনা রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। আর শহরের ইন্দা, পুরাতনবাজার, নিমপুরা ও তালবাগিচা এলাকায় একজন করে করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। এদিকে খড়গপুর মহকুমা হাসপাতালে সেফ হোমে এই মুহূর্তে দুইজন করোনা আক্রান্ত ভর্তি রয়েছেন। সবমিলিয়ে খড়গপুর শহরে করোনা পরিস্থিতি ধীরে ধীরে ভয়াবহ আকার নিতে চলেছে। আর এই পরিস্থিতিতে মঙ্গলবার তেলেগুদের নববর্ষ ‘ উগাডি’ সাড়ম্বরে পালিত হয়েছে।

খড়গপুর শহরের তেলেগু অধ্যূষিত নিউ সেটেলমেন্ট, ওল্ড সেটেলমেন্ট, নিমপুরা, মথুরাকাটি, ধোবিঘাট, জয়হিন্দনগর, সাউথ সাইড এলাকায় এই উগাডি উদযাপন হয়েছে। এইদিন প্রতিটি তেলেগু পরিবারের সদস্যরা সকালে স্নান করে নতুন পোশাক পরিধান করে যে যার বাড়িতে পুজো করেছেন। এইদিন বাড়িতে মেয়ে জামাই সহ বাইরে থাকা পরিবারের সকলকে আসতে বলা হয়। তবে শহরে করোনার ক্রমবর্ধমান উপদ্রবের জেরে অনেকেই মন্দির যাওয়া এড়িয়ে গিয়েছেন। নিউ সেটেলমেন্ট এলাকার বাসিন্দা এম সূর্য রাও বললেন ” গত বছর লকডাউনের জন্য আমরা সেরকম কিছুই করতে পারিনি।

ভেবেছিলাম এই বছর উগাডি উদযাপন করার জন্য মন্দিরে যাব। কিন্তু যেভাবে করোনা আবার বাড়তে শুরু করেছে তাতে কোনও ঝুঁকি নিলাম না। বাড়িতেই সমস্ত আচার অনুষ্ঠান করলাম।” একই বক্তব্য শহরের ওল্ড সেটেলমেন্ট এলাকার এম চন্দ্রশেখর নায়ডুর। তিনি বললেন ” বাড়িতে থেকে যে আচার অনুষ্ঠান করা যায় সেখানে শুধু শুধু মন্দিরে ভিড়ের মধ্যে গিয়ে কোনও লাভ নেই। তাছাড়া এখন আবার করোনা বাড়তে শুরু করেছে। ফলে সাবধানে থাকাই ভালো।” তবে এইদিন তেলেগু অধ্যূষিত এলাকায় মাতা মন্দিরগুলিতে ভিড় নজরে পড়লেও অনেকের মুখে মাস্ক দেখা যায় নি।

এই ব্যাপারে আন্না রেড্ডি নামে এক রেলকর্মী জানালেন সরকারের পক্ষ থেকে কঠোর পদক্ষেপ না নেওয়া হলে মানুষ এরকম উদাসিন থাকবেন। আর খড়গপুর মহকুমা শাসক আজমল হোসেন বলেছেন বাড়ির বাইরে বেরোলে মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক। এই বিষয়ে নজরদারি কিভাবে করা যায় সেই নিয়ে কিছু পরিকল্পনা নেওয়া হচ্ছে। শীঘ্রই বাস্তবায়ন করা হবে।