ছয়দিন ধরে পানীয় জলের-সমস্যা, ক্ষোভ বাড়ছে খড়গপুরে

খড়গপুর ২৪×৭:  ছয় দিন হয়ে গিয়েছে জল পাচ্ছেন না খড়গপুর পুরসভার ১৭ ও ১৮ নম্বর ওয়ার্ডের একাংশের বাসিন্দারা। সতেরো নম্বর ওয়ার্ডের ছত্তিশপাড়া ও আঠারো নম্বর ওয়ার্ডের চায়না টাউন বস্তি এলাকায় জল সংকট দেখা দিয়েছে। যদিও পুরসভার পক্ষ থেকে চায়না টাউন এলাকায় জলের ট্যাঙ্ক পাঠানো হয়েছে।

কিন্তু তাতে সমস্যা মিটছে না। বাসিন্দারা পর্যাপ্ত জল পাচ্ছেন না। ফলে এই নিয়ে মানুষের মধ্যে ব্যাপক ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে। তবে পুরসভার পক্ষ থেকে সমস্যা সমাধানের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। জানা গিয়েছে খড়গপুর টাউন হল ময়দানে পুরসভার দুটি বোরিং রয়েছে। এই দুটি বোরিং থেকে এই দুটি ওয়ার্ডের বিস্তীর্ণ এলাকায় জল সরবরাহ করা হয়। গত ছয়দিন ধরে দুটি বোরিং খারাপ হয়ে রয়েছে।

ফলে জল সরবরাহ একেবারে বন্ধ হয়ে গিয়েছে। এই ব্যাপারে খড়গপুর পুরসভার প্রশাসক সমীর কুমার দাস জানিয়েছেন দুটি বোরিং মেরামতের কাজ শুরু হয়েছে। তাঁর আশা রবিবার সকালের মধ্যে পরিস্থিতি স্বাভাবিক হয়ে যাবে। জল সরবরাহ শুরু করা সম্ভব হবে। এলাকার বাসিন্দারা জল পাবেন। তবে তিনি বলেছেন টাউন হল ময়দানের দুটি বোরিং খারাপ হয়ে যাওয়ার খবর অনেকটা দেরিতে পাওয়া গিয়েছে। তাই মেরামতের কাজ শুরু করতে দেরি হয়েছে।

এই ব্যাপারে তিনি স্থানীয় ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা কোঅর্ডিনেটরদের আরও একটু তৎপর হওয়ার আবেদন জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন স্থানীয় ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা কোঅর্ডিনেটর এইধরনের সমস্যা নিয়ে দ্রুত লিখিতভাবে জানান তাহলে সমস্যার সমাধানে দ্রুত হস্তক্ষেপ করতে সুবিধা হয়। এদিকে খড়গপুরে দ্বিতীয় জল প্রকল্পের সাফল্য নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন খড়গপুর পুরসভার সতেরো নম্বর ওয়ার্ডের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা কোঅর্ডিনেটর দেবাশিস চৌধুরী।

তিনি শনিবার বলেছেন খড়গপুরে দ্বিতীয় জল প্রকল্প প্রযুক্তিগতভাবে ভুলে ভরা। শহরের মানুষ এই জল প্রকল্পের কোনও সুবিধা এখনও পর্যন্ত পান নি। এখনও শহরের মানুষকে কালো জল ব্যবহার করতে হচ্ছে। তিনি বলেন খড়গপুর শহরের মানুষকে এখনও প্রথম জল প্রকল্পের উপর নির্ভর করে চলতে হচ্ছে। দ্বিতীয় জল প্রকল্প কার্যত ব্যর্থ বলে তিনি উল্লেখ করেছেন। যদিও পুরসভার বর্তমান প্রশাসক সমীর কুমার দাস এখনই দ্বিতীয় জল প্রকল্প ব্যর্থ হয়েছে বলে মানতে নারাজ। তবে তিনি রাজ্য সরকারের পুর ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের গাফিলতি রয়েছে বলে স্বীকার করেছেন। তিনি বলেন দ্বিতীয় জল প্রকল্পের পুরোপুরি সুবিধা শহরের মানুষকে দেওয়ার ক্ষেত্রে এই বিভাগের গাফিলতি রয়েছে।

পাশাপাশি তিনি দ্বিতীয় জল প্রকল্পের পাইপ লাইন টানার জন্য ছয় নম্বর জাতীয় সড়ক কর্তৃপক্ষের ছাড়পত্র না পাওয়া একটি সমস্যা বলে জানালেন। তবে এই ছাড়পত্র যাতে পাওয়া যায় তার চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানালেন।