রেশন সামগ্ৰী বেআইনি মজুতের অভিযোগে, দুই ব্যাক্তিকে গ্রেফতার করল খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ

KHARAGPUR 24×7:  রেশনের সামগ্ৰী বেআইনি ভাবে মজুত করার অভিযোগে দুই ব্যক্তি পুলিশের জালে ধরা পড়েছে। শনিবার দুপুরে খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ, খড়গপুর মহকুমা শাসক ও খাদ্য দফতরের যৌথ অভিযান চালায় খড়গপুর পুরসভার ১৯ নম্বর ওয়ার্ডের খরিদা নিমগেড়িয়া পাটনা এলাকায়।

সেই গুদামে অভিযান চালিয়ে বেআইনিভাবে মজুত করে রাখা প্রচুর পরিমাণে রেশনের চাল, গম ও আটা বাজেয়াপ্ত করা হয়। তারসাথে গুদাম মালিক ও একটি পিকআপ ভ্যানের চালককে গ্ৰেফতার করা হয়। আর গুদামটি সিল করে দেওয়া হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে ধৃতরা হলেন মুকেশ গুপ্তা। গুদাম মালিক এই ব্যাক্তির বাড়ি খরিদা এলাকায়। আর পিকআপ ভ্যান চালক রমেশ রাও।

বাড়ি খড়গপুর পুরসভার দশ নম্বর ওয়ার্ডের মালঞ্চ ঝাড়েশ্বর মন্দির এলাকায়। ধৃত দুজনকে এইদিন আদালতে হাজির করা হয়। বিচারকের নির্দেশে দুজনের তিনদিনের পুলিশ হেফাজত হয়েছে। এইদিনের অভিযানে উপস্থিত ছিলেন খড়গপুর মহকুমা শাসক আজমল হোসেন, খাদ্য দফতরের খড়গপুর পুরসভা এলাকার আধিকারিক সৌম্য চট্টোপাধ্যায়, খড়গপুর মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দীপক সরকার ও খড়গপুর টাউন থানার আইসি রাজা মুখোপাধ্যায়।

এই ব্যাপারে খড়গপুর মহকুমা শাসক আজমল হোসেন জানিয়েছেন গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। দুজনকে গ্ৰেফতার করা হয়েছে। এঁদের জেরা করে এই রেশন সামগ্ৰী পাচারের উৎস খুঁজে বের করার চেষ্টা করা হচ্ছে। জানার চেষ্টা চলছে এই সামগ্ৰীগুলি কোন কোন রেশন দোকান থেকে আনা হয়েছে। কারা জড়িত রয়েছেন। পাশাপাশি তিনি জানিয়েছেন ঘটনায় যারা যুক্ত থাকবেন তাঁদের প্রত্যেকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নেওয়া হবে। কাউকে ছাড়া হবে না।

ঘটনার সূত্রপাত শুক্রবার রাতে। ওইদিন রাতে খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ গোপন সূত্রে খবর পেয়ে খরিদা এলাকায় একটি পিকআপ ভ্যান আটক করে। সেখান থেকে পিষাই করতে নিয়ে যাওয়া কুড়ি বস্তা গম আটক করে। প্রতিটি বস্তায় ৫০ কেজি করে গম ছিল। সবমিলিয়ে দশ কুইন্টাল গম আটক করা হয়। তারসাথে পিকআপ ভ্যানের চালক রমেশ রাওকে আটক করা হয়।

তাকে জেরা করে পুলিশ এই গুদামের সন্ধান পায়। তারপর শনিবার দুপুরে যৌথ অভিযান চালানো হয় এই গুদামে। সেখান থেকে এইদিন প্যাকেটে রাখা ৫০ বস্তা আটা, ৩৫ বস্তা চাল ও আট বস্তা গম বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। তারসাথে গুদামটি সিল করে দেওয়া হয়েছে।