পিংলায় পদ্মশিবিরে ভাঙন, ১২০০ বিজেপি কর্মীর তৃণমূলে যোগ

KGP 24X7(PINGLA): ভোট মিটতেই রাজ্যজুড়ে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগদানের হিড়িক পড়েছে। সেই পথে হেঁটেই এবার বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দিলেন পিংলা ব্লকের প্রায় ১২০০ কর্মী।

তাঁদের হাতে দলীয় পতাকা তুলে দেন পিংলা ব্লক তৃণমূলের সভাপতি শেখ সাবেরথী,পিংলা ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সহ-সভাপতি শিব শংকর দাস, জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সম্পাদক চণ্ডীচরণ সামন্ত, তৃণমূলের জেলা পরিষদের সদস্য রফিকুল ইসলাম,। যদিও জেলা বিজেপি নেতাদের দাবি, এটা স্বেচ্ছায় যোগদান নয়। চাপ সৃষ্টি করেই সর্বত্র বিজেপি কর্মীদের তৃণমূলে যোগ দিতে বাধ্য করা হচ্ছে।

তৃণমূল সূত্রে জানা গিয়েছে, শুক্রবার পিংলা ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের উদ্যোগে এই যোগদান অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সেই অনুষ্ঠানেই এলাকার বিভিন্ন বুথের বেশ কয়েকজন সভাপতি ও নেতা উপস্থিত ছিলেন। এদিন পিংলা ব্লক তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি শেখ সাবেরথীর হাত ধরে তাঁরা তৃণমূলে যোগ দেন।

তৃণমূলে যোগ দেওয়ার পর তাঁরা জানান, এবারের বিধানসভা ভোটে তাঁরা বিজেপির হয়ে কাজ করেছেন। অথচ দুর্দিনে কোনওদিনই তাঁরা বিজেপি-র কোনও নেতাকে পাশে পান না। এর সঙ্গে তারা আরো জানান বিজেপি বিভাজনের রাজনীতি করছে। একমাত্র মমতা ব্যানার্জি পারে দুর্দিনে তাঁদের ও দলীয় কর্মীদের পাশে দাঁড়াতে। এসব উপলব্ধি করে তাঁরা স্বেচ্ছায় তৃণমূলে যোগ দেন।

তৃণমূল নেতা শেখ সাবেরথী বলেন,বিজেপি কর্মীরা কেন্দ্রের বিভাজনের রাজনীতির মেনে নিতে পারেনি। তারা একসময় বিজেপি করতেন, মমতা ব্যানার্জির আদর্শ নিয়ে এবং বিশেষ করে পিংলার গ্রাম বাংলার উন্নয়ন করতে। এক সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সব ভেদাভেদ ভুলে আজকে প্রায় এক হাজারেরও বেশি বিজেপি কর্মী তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন।

যোগদান করার পরেই সেখ অহেদুল বলেন ২০২৪ এর নির্বাচনে নরেন্দ্র মোদী ভিক্ষার ঝুলি ধরবেন।বিজেপি সাম্প্রদায়িক দল, তাই আমরা তৃণমুল কংগ্রেসে যোগদান করলাম।অপরদিকে বিজেপির ঘাটাল সাংগঠনিক জেলার সভাপতি তন্ময় দাস বলেন এলাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের সন্ত্রাসের জন্য ওরা তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছে। এর পাশাপাশি এদিনের যোগদান শেষে প্রতিটি কর্মীকে তৃণমূলের পক্ষ থেকে মিষ্টিমুখ করানো হয়।