অভিমানে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আত্মঘাতী হলেন মহিলা, দাঁতনে চাঞ্চল্য

KGP 24X7(DANTAN): অভিমানে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আত্মঘাতী হলেন এক মহিলা। গতকাল সন্ধ্যায় ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুর জেলার দাঁতনে। এই ঘটনার পর গোটা এলাকা জুড়ে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়েছে। পুলিশ সূত্রে জানা গিয়েছে, মৃত মহিলার নাম গীতা রানী দাস (৫০)। তার বাড়ি দাঁতন থানার সোলেমাপুর গ্রামে।

যদিও এলাকাবাসীর দাবি মানসিক ভারসাম্য থাকার কারনে রাগ বসত গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী হয়েছেন ওই মহিলা। জানা গিয়েছে, পুলিশ মৃতদেহটি উদ্ধার করে খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে ময়না তদন্তের পাঠিয়েছে। ইতিমধ্যে ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে দাঁতন থানার পুলিশ।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, মৃত ওই মহিলা বাড়িতে একা থাকতেন। গতকাল বিকেলে বাড়িতে থাকা গরু দড়ি ছিঁড়ে ফাঁকা মাঠের দিকে চলে যায়। তারপরই সন্ধ্যা হওয়ার আগেই গরু খোঁজাখুঁজি শুরু করে ওই মহিলা। এলাকায় খোঁজাখুঁজির পরে মাঠের একটি ঝোপের ধারে থেকে গরু নিয়ে আসে বাড়িতে। তারপরই দড়িতে বেঁধে গরুটিকে বেধড়ক মারধর করে ওই মহিলা।

গরুটিকে মারধর করায় দেখতে পাওয়ায়, স্থানীয় বাসিন্দারা ওই মহিলাকে বাধা দেয় তাকে বকাবকি করে। তখনই স্থানীয়দের সঙ্গে রেগে ঝগড়া শুরু করে। তারপরই অভিমানে বাড়ি থেকে পালিয়ে যায় ওই মহিলা। বাড়ির কিছুটা দূরে গিয়ে গায়ে কেরোসিন তেল ঢেলে গায়ে আগুন লাগিয়ে আত্মঘাতী হন ওই মহিলা। ঘটনার পর স্থানীয় বাসিন্দারা ওই মহিলাকে উদ্ধার করে দাঁতন হসপিটালে গেলে চিকিৎসকরা তাকে মৃত বলে ঘোষণা করে।

স্থানীয়রা জানান মহিলা খুব উগ্র মেজাজি ছিলেন তার জেরেই অভিমানে আত্মঘাতী হয়েছেন। এদিকে এ ঘটনার খবর পেয়ে দাঁতন থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে মৃতদেহ উদ্ধার করে। মৃতদেহটিকে আজ ময়নাতদন্তের জন্য খড়্গপুর মহকুমা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। শুধু কি অভিমানে আত্মঘাতী নাকি এর পেছনে অন্য কোনো কারণ রয়েছে তার তদন্ত শুরু করেছে দাঁতন থানার পুলিশ।