Wednesday, December 8, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরডেবরায় মধ্যযুগীয় বর্বরতা! জমি জায়গা সংক্রান্ত বিবাদকে কেন্দ্র করে শাসকদলের এক প্রভাবশালী...
Advertisement

ডেবরায় মধ্যযুগীয় বর্বরতা! জমি জায়গা সংক্রান্ত বিবাদকে কেন্দ্র করে শাসকদলের এক প্রভাবশালী নেতার ফতোয়ার জেরে বন্ধ ধোপা নাপিত

Advertisement

Advertisement

নিজস্ব সংবাদদাতা,ডেবরা:  কোনও রাজনৈতিক বিবাদ নয়। জমি জায়গা সংক্রান্ত বিবাদকে কেন্দ্র করে শাসকদলের স্থানীয় এক প্রভাবশালী নেতার ফতোয়ার জেরে বন্ধ ধোপা নাপিত। বন্ধ দেবালয়ে প্রবেশ থেকে শুরু করে চাষবাস। বন্ধ অন্নপ্রাশন থেকে শুরু করে বিয়ের অনুষ্ঠান। মধ্যযুগীয় এই শাসন ব্যবস্থা চলছে ডেবরা থানার ডুঁয়া এক নম্বর গ্ৰাম পঞ্চায়েতের কালুয়া আকুব গ্ৰামে।

- Advertisement -
Advertisement
- Advertisement -

যদিও এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন তৃণমূলের প্রধান থেকে শুরু করে নেতারা। আর পুলিশ জানিয়েছে বয়কট বলে কিছু নেই। সামান্য কিছু গ্ৰাম্য সমস্যা রয়েছে। কিন্তু দীর্ঘ কয়েক মাস ধরে এই বয়কটের জেরে এই গ্ৰামের আঠারোটি পরিবার চরম দুর্ভোগে রয়েছেন। তাঁদের ধোপা, নাপিত, ব্রাহ্মণ বন্ধ। মুদি দোকান ধান ভাঙার কল বন্ধ। দেবস্থানে যাওয়া নিষেধ। তবে নিষেধের তালিকা এখানেই শেষ নয়।

রাজনৈতিক নেতা ও গ্ৰামের মাতব্বরদের ফতোয়ায় দুই সোমত্ত মেয়ের বিয়ে দিতে পারছে না একটি পরিবার। এমনকি এক রত্তির অন্নপ্রাশন পর্যন্ত করা যায় নি এই ফতোয়ার জেরে। এক গৃহবধূ জানিয়েছেন তাঁর ছয় মাসের মেয়ের অন্নপ্রাশন করতে পারেন নি। এখন তার বয়স নয় মাস। শুধু তাই নয় বয়কটের শিকার এই পরিবারগুলির এইধরনের কোনও অনুষ্ঠানে প্রতিবেশীদের যাওয়ার ক্ষেত্রে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে।

বলে দেওয়া হয়েছে যাঁরা যাবেন তাঁদেরও বয়কট করা হবে। সেরকমভাবে দুটি পরিবার নতুন করে বয়কটের শিকার হয়েছেন। বয়কটের কারনে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনার টাকা পেয়েও বাড়ি তৈরি করতে পারছেন না কয়েকটি পরিবার। রাস্তায় পড়ে থেকে নষ্ট হচ্ছে বাড়ি তৈরির সামগ্ৰী। কিন্তু বয়কটের কারন কি? দুটি পরিবারকে বয়কট করা হয়েছে কৃষিজমির উপর দিয়ে রাস্তা তৈরির জন্য জায়গা না ছাড়ার কারনে।

এঁরা হলেন বিশ্বরূপ দাস গোস্বামী ও নকুল চন্দ্র হাইতের পরিবার। আর বাকি পরিবারগুলিকে বয়কট করা হয়েছে পঞ্চায়েতের রাস্তা তৈরির জন্য বাস্তুজমি‌র জায়গা না ছাড়ার জন্য। আর বাকি বারোটি পরিবারকে বয়কট করা হয়েছে পাট্টা জমি পাওয়ার কারনে।

এই ক্ষেত্রে প্রশ্ন তোলা হয়েছে গ্ৰামের জমি তাঁরা কিভাবে পায়। এই ব্যাপারে এই গ্ৰাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান গোবিন্দ সামুই বলেছেন কোথাও কোনও বয়কট নেই। অভিযোগ ভিত্তিহীন। আর এক নেতা সন্তু মন্ডল বলেছেন ” না, না, কাউকে বয়কট করা হয় নি। গ্ৰামের নিয়ম না মানায় ওদের মন্দিরে যাওয়া নিষেধ করা হয়েছে মাত্র।”

Advertisement

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!