পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরছে মানসিক ভারসাম্যহীন, আতঙ্ক মেদিনীপুরে

 

নিজস্ব সংবাদদাতা,মেদিনীপুরঃ পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে শহরের রাস্তায় ঘুরে পাড়াতে দেখা গেল এক মানসিক ভারসাম্যহীন এক ব্যাক্তি। ঘটনা মেদিনীপুর শহরে। কখনও কালেক্টরেট মোড়, কখনো কেরানীতলা, কখনও বাসস্ট্যান্ডএর রাস্তায় ঘুরতে দেখা গেছে। অবশেষে পুলিশের সহযোগিতায় মানসিক ভারসাম্যহীন ওই ব্যক্তিকে পিপিই কিট খুলিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনায় আতঙ্ক ছড়িয়েছে মেদিনীপুর শহরে।

 

স্থানীয় মানুষজনের কথায়, দু-দিন ধরে শহরের বিভিন্ন জায়গায় পিপিই কিট পরা ওই ব্যক্তিকে ঘুরতে দেখা যাচ্ছে। কখনো টোটো চালকদের কাছে, কখনো অটোর সামনে, কখনো বা দোকানের সামনে। কখনো কখনো আবার পথচারীদের ছুঁতে যাচ্ছে। ফলে তাঁকে দেখে আতঙ্কে পালাচ্ছেন পথচারীরা।

 

পুলিশের কাছে এই খবর যাওয়ার পর, পুলিশ উদ্যোগ নেয় ওই ব্যাক্তিকে ধরে পিপিই কিট খুলিয়ে হাসপাতালে ভর্তি করার। জেলা পুলিশের এক আধিকারিক বলেন, ‘লোকটিকে দেখেই মনে হচ্ছে পুরোপুরি মানসিক ভারসাম্যহীন। কোথা থেকে এই পিপিই কিট পেয়েছে তা জানিনা। ওই ব্যক্তিকে হাসপাতালে চর্তি করা হয়েছে চিকিৎসার জন্য।’

 

প্রশ্ন উঠেছে কীভাবে এই পরিস্ত্যক্ত পিপিই কীট পেলো ওই ব্যক্তি। আগেও যত্রতত্র মাস্ক, গ্লাভস পরিত্যক্ত পিপিই কিট পড়ে থাকার অভিযোগ উঠেছে পশ্চিম মেদিনীপুরে। গত বছর আয়ুষ করোবনা হাসপাতালের পিছনের ডাস্টবিন থেকে এক ব্যাক্তি একটি পরিত্যক্ত পিপিই কিট পরে এলাকায় ঘুরতে থাকে। স্থানীয় মানুষ পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ থেকে তাকে উদ্ধার করে পিপিই কিট খোলায়। ফের একই ঘটনায় প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে স্বাস্থ্যদপ্তরের ভূমিকা নিয়ে। যদিও স্বাস্থ্য দপ্তরের তরফে এর কোনও সদুত্তর মেলেনি।