Sunday, September 19, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরখড়গপুরে ATM-এ টাকা ভরার সময় লুটের চেষ্টা, প্রকাশ্য বাজারে গুলি চালানো দুষ্কৃতীরা

খড়গপুরে ATM-এ টাকা ভরার সময় লুটের চেষ্টা, প্রকাশ্য বাজারে গুলি চালানো দুষ্কৃতীরা

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: দুষ্কৃতীদের তান্ডব অব্যাহত। রেলনগরী খড়গপুর শহর ক্রমশই দুষ্কৃতীদের মৃগয়াক্ষেত্র হয়ে উঠছে। পরপর দুটি ছিনতাই কান্ডের রেশ এখনও কাটে নি। তারইমধ্যে এবারে ফের গুলি চলল। এবারে গুলি চলেছে একেবারে দিনের আলোয় জনবহুল গোলবাজার এলাকায়।

মঙ্গলবার সকাল এগারোটা নাগাদ গুলি চালিয়ে এটিএমের টাকা লুঠ করার চেষ্টা করা হয়েছে এটিএম ভ্যান থেকে। যদিও এক নিরাপত্তা রক্ষীর অসীম সাহসিকতায় দুষ্কৃতীদের এই টাকা লুঠের চেষ্টা ব্যর্থ হয়েছে। কিন্তু গুলিবিদ্ধ হয়েছেন নিরাপত্তা রক্ষী ও এক কর্মী। দুজনকেই মেদিনীপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

- Advertisement -

এদিকে খবর পেয়ে খড়গপুর মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দীপক সরকারের নেতৃত্বে খড়গপুর টাউন থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। যদিও ততক্ষণে চার রাউন্ড গুলি চালিয়ে দুষ্কৃতীদের দল পালিয়ে যায়। তবে এই ঘটনায় খড়গপুর টাউন থানার পুলিশ একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে।

যদিও ঘটনাস্থলে সিসিটিভি ক্যামেরা না থাকায় পুলিশকে প্রাথমিকভাবে ধাক্কা খেতে হয়েছে তদন্তে নেমে। তবে স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীদের কাছ থেকে দুষ্কৃতীদের চেহারার বিবরণ নিয়ে তাদের খোঁজে তল্লাশি শুরু করেছে পুলিশ। জানা গিয়েছে দুষ্কৃতীরা সংখ্যায় চার থেকে পাঁচ জন ছিল। তিনটি মোটরবাইকে চেপে এসেছিল।

আর প্রত্যেকের মুখ মাস্কে ঢাকা ছিল। এদিকে ঘটনাস্থলে কোনও সিসিটিভি ক্যামেরা না থাকায় পুলিশের পক্ষ থেকে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকে দায়ী করা হয়েছে। জানা গিয়েছে এইদিন সকাল এগারোটা নাগাদ গোলবাজার এলাকায় হকার্স মার্কেট লাগোয়া একটি রাষ্ট্রায়ত্ত ব্যাংক থেকে টাকা নিয়ে বাটার শোরুমের পেছনে ফাঁকা জায়গায় রাখা গাড়িতে রাখার জন্য একটি বেসরকারি কোম্পানীর দুইজন কর্মী পৌঁছান।

গাড়ির ভেতরে টাকা বোঝাই ট্রাঙ্কটি রেখে দেওয়ার পরেই অতর্কিতে দুষ্কৃতীদের দল চড়াও হয়। প্রথমেই তারা মথুরা মোহন রায় নামে নিরাপত্তা রক্ষীকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। একটি গুলি লক্ষ্য ভ্রষ্ট হয়। আরেকটি পায়ে লাগে। তারপরেই গাড়ির দরজা খোলার জন্য রীতিমতো চাপ দিতে শুরু করে দুষ্কৃতীরা। কিন্তু দরজা না খুলে ভেতরে বসে ছিলেন অপর এক কর্মী সোমনাথ সরকার।

তাঁর বক্তব্য দরজা না খোলায় চালকের আসনের দিকে দরজা দিয়ে গুলি চালায়। তখন দুটি গুলি তার লাগে। একটি পায়ে। অপরটি হাতে। তারপর স্থানীয় লোকজন জড়ো হতেই দুষ্কৃতীরা পালায় বলে তিনি জানিয়েছেন। তবে পালানোর সময় শূণ্যে এক রাউন্ড গুলি দুষ্কৃতীরা চালায় বলে জানা গিয়েছে। ঘটনার খবর পাওয়ার পরই খড়গপুর মহকুমা পুলিশ আধিকারিক দীপক সরকারের নেতৃত্বে খড়গপুর টাউন থানার বিশাল পুলিশ বাহিনী ঘটনাস্থলে পৌঁছায়।

ফাঁকা গুলির খোল উদ্ধার করে। এই ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (খড়গপুর) রানা মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন একটি স্বতঃপ্রণোদিত মামলা দায়ের করে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। কিছু সূত্র পাওয়া গিয়েছে। পাশাপাশি তিনি ঘটনাস্থলে সিসিটিভি ক্যামেরা না রাখার জন্য ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষকে দায়ী করে বলেছেন ” ওই জায়গায় যেহেতু প্রায় প্রতিদিনই এইভাবে গাড়িতে টাকা উঠানো হয় সেইকারনে ব্যাঙ্ক কর্তৃপক্ষের উচিত ছিল সিসিটিভি ক্যামেরা রাখা।” এদিকে শহরে পরপর অপরাধের ঘটনায় রাজ্যের শাসকদলের পক্ষ থেকেও উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়েছে।

তৃণমূলের খড়গপুর শহর কমিটির সভাপতি রবিশংকর পান্ডে বলেছেন ” শহরে এইভাবে অপরাধ বেড়ে যাওয়া যথেষ্ট উদ্বেগের। তবে আশা করছি পুলিশ এই ঘটনার কিনারা করতে পারবে।” পাশাপাশি তিনি মনে করেন খড়গপুর শহরে বর্তমানে নতুন নতুন অপরাধীরা এইধরনের ঘটনা ঘটাচ্ছে। এদিকে এইদিনের ঘটনার জেরে গোলবাজার এলাকায় ব্যাপক আতঙ্ক তৈরি হয়েছে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!