Thursday, September 23, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরদলেরই মহিলা কাউন্সিলরের বাড়ির সামনে মল ত্যাগ করে তালা বন্ধ করার নিদান...

দলেরই মহিলা কাউন্সিলরের বাড়ির সামনে মল ত্যাগ করে তালা বন্ধ করার নিদান দিলেন, বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: এলাকায় জল জমে থাকার জন্য দলের মহিলা কাউন্সিলরের অকর্মণ্যতাকে দায়ি করে প্রকাশ্যে ক্ষোভে ফেটে পড়লেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষ। কাউন্সিলরের বাড়ির সামনে মল ত্যাগ করে তালা বন্ধ করার নিদান দিলেন।

তারসাথে কাউন্সিলরকে ল্যাম্পপোস্টে বেঁধে দেওয়া ও রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার পরামর্শ পর্যন্ত দিয়েছেন। যদিও দলের রাজ্য সভাপতির এইধরনের বক্তব্যের তীব্র নিন্দা করেছেন মহিলা কাউন্সিলর। আর পুরসভার প্রশাসক দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের কড়া নিন্দা করে বিজেপি কাউন্সিলরের পাশে দাঁড়িয়েছেন। সবমিলিয়ে খড়গপুর শহরের রবিবাসরীয় সকাল দিলীপ ঘোষের এই বিস্ফোরক মন্তব্যে সরগরম রইল।

- Advertisement -

এইদিন দিলীপ ঘোষ খড়গপুর পুরসভার দুই নম্বর ওয়ার্ডের আনন্দনগর এলাকায় পথ দুর্ঘটনায় দীর্ঘদিন ধরে বাড়িতে পড়ে থাকা অসুস্থ দলীয় কর্মী চরণজিৎ সিংকে দেখতে তাঁর বাড়িতে যান। সেখান থেকে বেরিয়ে গাড়িতে ওঠার পরেই স্থানীয় বাসিন্দারা তাঁকে ঘিরে ধরে এই এলাকার জলযন্ত্রণা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করতে শুরু করেন।

তখনই মেজাজ হারিয়ে তিনি বলেন ” এটাও আমি করে দেব? আর আপনারা বাড়িতে শুয়ে থাকবেন।” তারপরেই লড়াই ও আন্দোলন সহ রাস্তা বন্ধ করে দেওয়ার পরামর্শ দেন। তখন বাসিন্দারা তাঁরই দলের বিদায়ী কাউন্সিলর তথা কোঅর্ডিনেটরের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগরে দিলে রীতিমতো অগ্নিশর্মা হয়ে তিনি বলেন ” বেঁধে দিন ল্যাম্পপোস্টে। হিম্মত থাকলে লড়ুন। আমি পাশে আছি।” তাতেও মানুষের ক্ষোভ প্রশমিত না হলে রীতিমতো বিস্ফোরক হয়ে বলে উঠেন ” কাউন্সিলরের বাড়ির সামনে হেগে দিয়ে আসুন গিয়ে।

বাড়িতে তালা ঝুলিয়ে দিন। যাতে বেরোতে না পারে। ছোটোলোকদের সাথে ছোটোলোকের মত ব্যবহার করতে হয়।” তবে শুধু এই ওয়ার্ডের সমস্যা নিয়ে নয়। সার্বিকভাবে খড়গপুর শহরের কোনও উন্নয়ন না হওয়ার অভিযোগ তুলে পুরসভাকে দায়ি করেছেন। তিনি বলেন ” অনেকদিন ধরেই টাকা পড়ে ছিল। করতে চায় না এমকেডিএ। আমার নতুন প্রকল্প পাশ করতে চায় না।

অনেক বলাবলি করার পরেও আটকে রেখেছে। বিধায়ক ফান্ডের টাকা সেই দু বছর আগে মেয়াদ শেষ হয়েছে। সেই টাকা এখনও পড়ে রয়েছে। বারবার বাতিল করেছে।” তিনি বলেন সাংসদ তহবিলের টাকায় কাজ করার জন্য প্রজেক্টগুলি করতে দিচ্ছে না। তাঁর অভিযোগ এখানকার তৃণমূলের সরকার কাজ না নিজেরা করতে পারছে না তাঁদের করতে দিচ্ছে। তাঁর সরাসরি অভিযোগ সাংসদ তহবিলের টাকা দেওয়ার পরেও পুরসভা কোনও কাজ করেনি।

যদিও দিলীপ ঘোষের এই অভিযোগ বিভ্রান্তিমূলক বলে দাবি করেছেন খড়গপুর পুরসভার প্রশাসক তথা প্রাক্তন বিধায়ক প্রদীপ সরকার। পাশাপাশি তিনি একজন মহিলা কাউন্সিলর সম্পর্কে দিলীপ ঘোষের এই মন্তব্যের কড়া নিন্দা করেছেন। তিনি বলেন ” নিজের দলের একজন মহিলা কাউন্সিলর সম্পর্কে এইধরনের কু মন্তব্য করা অত্যন্ত অন্যায় ও অরুচিকর। আমরা ভাবতেই পারি না একজন মহিলা কাউন্সিলর সম্পর্কে এইধরনের মন্তব্য একজন সাংসদ করতে পারেন।” পাশাপাশি তিনি বলেন ” উনি মানুষকে বিভ্রান্ত করছেন।

খড়গপুর শহর যে জলে ভেসে যায় তার বেশিরভাগই রেলের জল। রেলের কোনও মাস্টার প্ল্যান কিংবা পরিকল্পনা নেই নিকাশি ব্যাবস্থা নিয়ে। উনি যদি দয়া করে রেলের ছাড়পত্র আদায় করে দেন তাহলে কাজের অনেক সুবিধা হবে।” এদিকে দলের রাজ্য সভাপতি তথা সাংসদ দিলীপ ঘোষের মন্তব্যের কড়া প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন দুই নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপির বিদায়ী কাউন্সিলর তথা কোঅর্ডিনেটর সুখরাজ কাউর।

তিনি বলেন ” একজন মহিলা কাউন্সিলর সম্পর্কে এইধরনের কথা বলার কোনও অধিকার তাঁর নেই। কোনও প্রয়োজন হলে আমাকে ডেকে পাঠিয়ে জেনে নিতে পারতেন সমস্যা কোথায়। কিন্তু তিনি সেটি না করে আমার বিরুদ্ধে লোকজনকে উস্কে দিলেন। এটি ঠিক হয় নি।”

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!