Thursday, September 23, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুররাখীবন্ধন উৎসবে সামিল হলেন সাংবাদিকরা

রাখীবন্ধন উৎসবে সামিল হলেন সাংবাদিকরা

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: রবিবার রাখীপূর্ণিমার পূণ্য তিথিতে এক অন্য রাখীবন্ধন উৎসবে সামিল হলেন বেলদা কেশিয়াড়ি এলাকার সাংবাদিক ও সংবাদকর্মীরা। গত কয়েকবছর ধরে এঁদের উদ্যোগেই সমাজের একেবারে অবহেলিত শ্রেণির মানুষের কাছে গিয়ে রাখী বেঁধে দেওয়া হয়।

রবিবার বেলদার বাঁধপাড়ায় গিয়ে এরকমই এক অন্য রাখী বন্ধনে মাতলেন সদস্যরা। সাংবাদিক বিশ্বসিন্ধু দে, সুদীপ্ত মিত্র, রঞ্জন চন্দ, সংবাদকর্মী কৌশিক সিং দের এই উদ্যোগকে স্বাগত জানাতে এবং উদ্যোক্তাদের উৎসাহিত করতে উপস্থিত ছিলেন বেলদার প্রবীণ সাংবাদিক ও সম্পাদক বৃন্দাবন দাস অধিকারী, সাংবাদিক ও শিক্ষক অখিলবন্ধু মহাপাত্র প্রমূখ।

- Advertisement -

এদিন বেলদার গীতাঞ্জলি পল্লীস্থিত রবীন্দ্র মূর্তিতে মাল্যদান করেন বৃন্দাবন দাস অধিকারী, রাখী দিয়ে বরণ করেন অখিলবন্ধু মহাপাত্র, বাঙ্ময় মিশ্র প্রমূখ।

এখানে টোটোচালকদের হাতে উদ্যোক্তারা রাখী পরিয়ে দেন। এদিন শিশুদের রাখী পরানোর পাশাপাশি তাদের চকোলেট দেওয়া হয়।

১৯০৫ সালে বঙ্গভঙ্গের বিরোধিতা করতে রাখিকে গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করেছিলেন বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর । ১৯০৫  সালের ১৯ জুলাই সিদ্ধান্ত গ্রহণ করে ২০ জুলাই ব্রিটিশ সরকারের ভাইসরয় লর্ডকার্জন বঙ্গভঙ্গের কথা ঘোষণা করেন। জানানো হয়, এই আইন কার্যকর হবে ১৯০৫-এরই ১৬ অক্টোবর। সেই সময়ে  জাতি ধর্ম বর্ণ নির্বিশেষে বঙ্গভঙ্গের বিরোধিতায়  সামিল হন বাংলার মানুষ।  বৃটিশের এই নির্মম ঘোষণার প্রতিবাদে বাংলার মানুষ পরস্পরের হাতে বেঁধে দেন হলুদ সূতো।  কবিগুরু এই দিনটিকে রাখি বন্ধন উৎসব পালন করার ডাক দেন। বাংলায় হিন্দু ও মুসলিমদের মধ্যে সম্প্রীতি ও সৌভ্রাতৃত্বের বন্ধন গড়ে তোলা হয়। রবীন্দ্রনাথ এবং তাঁর সহযোগীরা উচ্চারণ করেছিলেন।

“বাংলার মাটি বাংলার জল

বাংলার বায়ু বাংলার ফল

পূণ্য হউক পূণ্য হউক

পূণ্য হউক, হে ভগবান “

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!