Sunday, September 19, 2021
Homeজেলাপশ্চিম মেদিনীপুরহাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে যাওয়া এক রোগীর ঝুলন্ত পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার,ডেবরায় ব্যাপক...

হাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে যাওয়া এক রোগীর ঝুলন্ত পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার,ডেবরায় ব্যাপক চাঞ্চল্য

- Advertisement -

খড়গপুর ২৪×৭ ডিজিটাল: হাসপাতাল থেকে উধাও হয়ে যাওয়া এক রোগীর ঝুলন্ত পচাগলা মৃতদেহ উদ্ধার হয়েছে রবিবার রাতে। ঘটনাটি ঘটেছে ডেবরায়। ডেবরা সুপার স্পেশালিস্ট হাসপাতালের উল্টোদিকে ৫০০ মিটার দূরে একটি ঝোপের মধ্যে একটি গাছের ডাল থেকে এই রোগীর মৃতদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে মৃতের নাম চন্দ্রকান্ত সিং (৫০)।

চন্দ্রকান্ত সিংয়ের ঝুলন্ত মৃতদেহ

- Advertisement -

বাড়ি ডেবরা থানার জালিবান্দা গ্ৰাম পঞ্চায়েতের খামরা গ্ৰামে। গত বুধবার পেটে ব্যাথা ও বমি’র উপসর্গ নিয়ে ডেবরা গ্ৰামীণ হাসপাতালের পুরনো একতলা ভবনে এই ব্যাক্তিকে ভর্তি করা হয়। তার ঠিক পরের দিন বৃহস্পতিবার রাতে এই রোগী হাসপাতাল থেকে পালিয়ে যান। দুদিন নিখোঁজ থাকার পর রবিবার রাতে এই ব্যক্তির ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। জানা গিয়েছে ওইদিন রাতে স্ত্রীর সঙ্গে কোনও বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়।

তারপরেই স্যালাইনের চ্যানেল লাগানো অবস্থায় এই ব্যাক্তি হাসপাতালের মেইন গেট দিয়ে বেরিয়ে যান। তাঁর পেছনে পেছনে স্ত্রী ও হাসপাতালের নিরাপত্তা রক্ষীরা দৌড়ে যান। কিন্তু কিছু দূর গিয়ে তাঁকে আর দেখা যায় নি। অন্ধকারে উধাও হয়ে যান। তারপরেই ডেবরা থানায় একটি নিখোঁজ ডায়েরী করা হয় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের তরফে।

রবিবার রাতে হাসপাতালের উল্টোদিকে ৫০০ মিটার দূরে পাটনা মন্দিরের পেছনের ঝোপে একটি গাছের ডালে এই ব্যাক্তির ঝুলন্ত মৃতদেহ উদ্ধার হয়। এর আগেও এই মাসের আট তারিখে ডেবরা সুপার স্পেশালিস্ট হাসপাতালের তিনতলার জানালা থেকে ঝাঁপ দিয়ে আত্মহত্যা করেন এক রোগীর মা। দুই সপ্তাহের ব্যবধানে ফের এক চিকিৎসাধীন রোগীর উধাও হয়ে যাওয়ায় হাসপাতালের নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে।

যদিও হাসপাতালে নিরাপত্তা ব্যবস্থা ও নজরদারি নিয়ে ঘাটতির অভিযোগ মানতে নারাজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এই ব্যাপারে ডেবরা ব্লকের স্বাস্থ্য আধিকারিক আরিফ হোসেন শা জানিয়েছেন ” ঘটনার সাথে হাসপাতালের নিরাপত্তা ব্যবস্থার গাফিলতির কোনও যোগ নেই। আমরা জানতে পারি এই ব্যাক্তির সাথে তাঁর স্ত্রীর বৃহস্পতিবার রাতে কথা কাটাকাটি হয়। তারপরেই এই ব্যাক্তি ওয়ার্ড ছেড়ে বেরিয়ে যান। তাঁর স্ত্রী বলার পরই নিরাপত্তা রক্ষীরা পিছু ধাওয়া করে। কিন্তু পরে আর খুঁজে পাওয়া যায়নি।

তারপরেই থানায় একটি মিসিং ডায়েরি করা হয়।” তবে তিনি জানালেন এবার থেকে হাসপাতালের ওয়ার্ডের ভেতরে যাতায়াতের ব্যাপারে আরও কড়াকড়ি করা হবে। অপরদিকে পুলিশ জানিয়েছে কোনও অভিযোগ দায়ের হয় নি। আপাতত একটি অস্বাভাবিক মৃত্যুর মামলা দায়ের করে ঘটনার তদন্ত শুরু হয়েছে। ময়নাতদন্তের রিপোর্ট পাওয়ার পর পুরো বিষয়টি স্পষ্ট হয়ে যাবে।

RELATED ARTICLES
- Advertisment -

Most Popular

error: Content is protected !!